বরিশালে বোনের বিয়ের শাড়ি কিনে বাড়ি ফেরার পথে ভাইয়ের মৃত্যু

প্রকাশিত: ৪:৩৫ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ৯, ২০২০

বরিশালের আগৈলঝাড়া উপজেলার গৈলা ইউনিয়নের উত্তর শিহিপাশা গ্রামের রবিউল সরদার (৩৪) ঢাকায় একটি কোম্পানিতে চাকরি করেন। আগামীকাল শুক্রবার (১০ জানুয়ারি) তার একমাত্র ছোট ছোট বোন সোনিয়ার বিয়ে।বোনের জন্য শাড়ি-চুড়িসহ বিয়ের আনুষঙ্গিক মালামাল কিনে বাড়ি ফিরছিলেন রবিউল। বৃহস্পতিবার (০৯ জানুয়ারি) বিকেলে বাড়ি গেল তার লাশ। বোনের বিয়ের হাসি-খুশির পরিবর্তে এখন বাড়িতে চলছে শোকের মাতম।মাদারীপুরের শিবচর উপজেলার কুতুবপুর এলাকায় বুধবার (০৮ জানুয়ারি) রাতে এসএ ট্রাভেলস নামের যাত্রীবাহী বাস রবিউলকে বহনকারী মাইক্রোবাসকে ধাক্কা দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই রবিউল ইসলাম নিহত হন।

দুর্ঘটনার খবরে পাল্টে যায় বিয়েবাড়ির পরিবেশ। কয়েক দিন ধরে যে বাড়িতে বিরাজ করছিল আনন্দ সেই বাড়িতে নেমে আসে মাতম। ছেলের মৃত্যুতে বাকরুদ্ধ বাবা-মা। ভাইকে হারিয়ে বোন সোনিয়া এখন কাঁদছেন। সোনিয়ার বুকফাটা কান্নায় প্রতিবেশীদের চোখ ভিজে যায়। রবিউল শিহিপাশা গ্রামের ভ্যানচালক লোকমান সরদারের ছেলে।রবিউলের স্বজনরা জানান, রবিউল ঢাকায় একটি কোম্পানিতে চাকরি করতেন। বোনের বিয়ের জন্য কর্মক্ষেত্র থেকে ছুটি নিয়ে বুধবার রাতে বাড়ির উদ্দেশ্যে রওনা দেন। এর আগে ঢাকার মার্কেটে ঘুরে ঘুরে বোনের জন্য শাড়ি-চুড়িসহ বিয়ের আনুষঙ্গিক মালামাল কিনেছেন রবিউল।

বুধবার রাতে রবিউলকে বহনকারী মাইক্রোবাসকে সজোরে ধাক্কা দেয় এসএ ট্রাভেলস নামের যাত্রীবাহী বাস। এতে ঘটনাস্থলেই নিহত হন রবিউল। ওই দুর্ঘটনায় মাইক্রোবাসে থাকা একই উপজেলার পতিহার গ্রামের হাফিজুল গোমস্তার ছেলে শাকিল গোমস্তাসহ (২৮) সাতজন আহত হন।শিবচর থানা পুলিশের ওসি আবুল কালাম আজাদ বলেন, মাইক্রোবাসটি পদ্মা সেতুর এক্সপ্রেস হাইওয়ের ভুল লেনে ঢুকে পড়ায় দুর্ঘটনাটি ঘটেছে। এতে আগৈলঝাড়ার দুজন নিহত ও সাতজন আহত হয়েছেন।

এদিকে ময়নাতদন্ত শেষে বৃহস্পতিবার বিকেলে রবিউলের মরদেহ গ্রামের বাড়ি আৗগলঝাড়ায় এসে পৌঁছে। এ সময় স্বজনদের মধ্যে কান্নার রোল পড়ে যায়। বার বার মূর্ছা যান বাবা-মা। মরদেহের পাশে বোন সোনিয়া বুক চাপড়ে কাঁদতে কাঁদতে বিলাপ করেছেন। বিকেলে জানাজা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে রবিউল সরদারকে দাফন করা হয়।

Sharing is caring!