বরিশালে নিখোঁজের ৩ দিন পরেও মেলেনি সেই ব্যবসায়ীর খোঁজ

প্রকাশিত: ৯:৫৭ অপরাহ্ণ, আগস্ট ২৭, ২০২০

শফিক মুন্সি ॥

ঢাকা থেকে বরিশালে এসে নিখোঁজ হওয়া মনিরুল ইসলাম (৫০) নামে এক ব্যবসায়ীর খোঁজ মেলেনি এখনও। তিনদিন (৭২ ঘণ্টা) পার হয়ে গেলেও নিখোঁজ ব্যক্তির কোন হদিস না পাওয়াতে উৎকণ্ঠায় রয়েছে তাঁর পরিবার। এদিকে পুলিশ জানিয়েছে তারা নিখোঁজ ব্যক্তির অনুসন্ধান ও বিষয়টি নিয়ে তদন্ত চালু রেখেছে।

জানা গেছে, ঢাকা থেকে পরিবারসহ গত মঙ্গলবার (২৫ আগস্ট) বরিশালে এসেছিলেন নিখোঁজ মনিরুল। সেদিন বেলা ১১ টায় বরিশাল নগরীর পুলিশ লাইনস সংলগ্ন এন হোসেন সড়ক (রঙ্গন কমিউনিটি সেন্টার গলি) এলাকা থেকে নিখোঁজ হন তিনি। নিখোঁজ হবার আগে তিনি ভাই – বোনদের সঙ্গে জমি বিক্রির টাকার ভাগবাটোয়ারা নিয়ে আলোচনায় বসেছিলেন। সেই আলোচনা এক পর্যায়ে ভেস্তে যায় এবং তিনি সেখান থেকে চলে গিয়ে নিখোঁজ রয়েছেন।

এ ব্যাপারে বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশ (বিএমপি) কমিশনার শাহাবুদ্দিন খান জানান, থানায় ডায়েরি হবার পর থেকে পুলিশ নিখোঁজ ব্যক্তির অনুসন্ধানের কাজ করছে। যেকোনো মুহূর্তে তারা এই বিষয়ে সুরাহা করতে পারবেন বলে আশা প্রকাশ করেন তিনি। একই সঙ্গে নিখোঁজ ব্যক্তির ব্যাপারে বিভিন্ন তথ্য সংগ্রহ করে গুরুত্বের সঙ্গে বিষয়টি তদন্ত করা হচ্ছে বলেও জানান এই পুলিশ কর্মকর্তা।

নিখোঁজ মনিরুল ইসলামের স্ত্রী মেহেরুন্নিসা বলেন,‘ গত মঙ্গলবার ঢাকা থেকে আমরা প্রথমে ঝালকাঠি আমার বাবার বাসায় আসি। সকাল ৮ টায় আমার দেবর রফিকুল ইসলাম সবুজ আমার স্বামীকে ফোন করে বরিশাল যাবার জন্য বলেন। ফোন পেয়ে আমার স্বামী আমাদেরকে ঝালকাঠিতে রেখে বরিশালে সবুজের বাসার উদ্দেশে রওনা হন। সেই বাসায় অবস্থানকালে সকাল ১০ টায় আমার স্বামীর সাথে ফোনে কথা হয়। কিন্তু বেলা ১১ টার দিকে ঐ বাসা থেকে আমাকে ফোন করে বলা হয় মনির (নিখোঁজ ব্যক্তি) রাগারাগি করে বাসা থেকে বের হয়ে গেছে। বের হয়ে যাবার সময় নাকি ভুলে তাঁর ব্যবহৃত মোবাইল ফোনটি ঐ বাসায় রেখে যায়’।

এ ব্যাপারে কোতোয়ালি মডেল থানার উপ পরিদর্শক (এসআই) ও নিখোঁজ ব্যক্তির অনুসন্ধানের দায়িত্বপ্রাপ্ত পুলিশ কর্মকর্তা সমীরণ মন্ডল জানান, নিখোঁজ মনিরুল ইসলামের স্ত্রী গত মঙ্গলবার (২৫ আগস্ট) রাতে একটি সাধারণ ডায়েরি দায়ের করেছেন (ডায়েরি নম্বর ১১৭৪)। সেই মোতাবেক পুলিশ নিখোঁজ ব্যক্তিকে খুঁজে বের করার কাজ করছে। তবে এই নিখোঁজ হবার পিছনে টাকা পয়সা ভাগাভাগি হবার একটি বিষয় আছে বলে তিনি স্বীকার করেন।

এই পুলিশ কর্মকর্তা বলেন, ‘প্রাথমিক অনুসন্ধানে যতটুকু জানা গেছে নিখোঁজ ব্যক্তি একজন ব্যবসায়ী। তাঁর ভাই-বোনদের সঙ্গে সম্পত্তি বিক্রির টাকা ভাগাভাগি বিষয় সুরাহার জন্য ঢাকা থেকে বরিশাল এসেছিলেন। এই বিষয়ে আলোচনার জন্য তিনি ভাইবোনদের সঙ্গে গত মঙ্গলবার সকালে নগরীর এন হোসেন সড়ক এলাকার রঙ্গন কমিউনিটি সেন্টারের বিপরীতে অবস্থিত একটি বাসায় বৈঠক করেন। আলোচনার এক পর্যায়ে রাগান্বিত হয়ে উক্ত বৈঠক স্থল ত্যাগ করেন নিখোঁজ ব্যক্তি’। তবে ৭২ ঘণ্টা পার হয়ে গেলেও এখন পর্যন্ত মনিরুল ইসলামের কোনো হদিস পাওয়া যায় নি।

Sharing is caring!