বরিশালে নানা অব্যবস্থাপনার মধ্যে দিয়ে শেষ হলো আয়কর সপ্তাহ

প্রকাশিত: ১১:২০ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ৩০, ২০২০

স্টাফ রিপোর্টার ॥ নানা অব্যবস্থাপনা ও ভোগান্তির মধ্যে দিয়েই বরিশালে শেষ হলো আয়কর সপ্তাহ-২০২০। নির্ধারিত সময়ের মধ্যে ২০২০-২১ অর্থ বছরের আয়কর রিটার্ন জমা দিতে গিয়ে পদে পদে ভোগান্তির শিকার হতে হয়েছে করদাতাদের। এমনকি সুযোগ সুবিধার অভাবে শেষ দিকে করদাতাদের সময় দিতে গিয়ে ভোগান্তিতে পড়তে হয় কর কর্মকর্তাদের।

কেননা এবার করোনার কারণে সীমিত পরিসরে আয় কর সপ্তাহ এবং কর দাখিলের সময় নির্ধারণ করে দিলেও ছিল না করদাতাদের দেখিয়ে-বুঝিয়ে দেয়ার কোন বুথ। রাখা হয়নি স্পট ব্যাংকিং ব্যবস্থা। অপ্রতুল ব্যবস্থার কারণে দীর্ঘক্ষণ গাদাগাদি করে লাইনে দাঁড়িয়ে আয়কর রিটার্ন সংগ্রহ করা হয়, এমনকি ছিল না স্বাস্থ্যবিধির কোন বালাই।
জানাগেছে, ‘সরকারের পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী ২০২০-২১ অর্থ বছরের আয়কর দেয়ার শেষ সময় ছিল ৩০ নভেম্বর সোমবার পর্যন্ত। গত কয়েক দিন ধরেই নগরীর আলেকান্দার ‘লাচিন ভবন’ কর ভবনে আয়কর দাতাদের উপচে পড়া ভিড় ছিল। এর মধ্যে গত রোববার এবং সোমবার অর্থাৎ শেষের দু’দিন সকাল থেকেই রাত পর্যন্ত অফিস চত্বরে আয়কর দাতাদের ভিড় ছিল চোখে পড়ার মতই।

বরিশাল কর কমিশনার মোহাম্মদ মোস্তফা গণমাধ্যমকে জানান, ‘স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে আয়কর দাতাদের উদ্বুদ্ধ করা হয়েছে। আমরা সাধ্যমত কর দাতাদের সেবা দেয়ার চেষ্টা করেছি। এরপরও কিছুটা ব্যত্যয় হতে পারে।

তিনি বলেন, ‘বরিশাল সদর ছাড়াও বিভাগের আরও পাঁচটি জেলায় একইভাবে ৩০ নভেম্বর পর্যন্ত আয়কর বিভাগ আয়কর রিটার্ন গ্রহণের সময়সীমা বেধে দিয়েছে। যার মধ্যে শুধুমাত্র বরিশাল জেলায় এবার করদাতার সংখ্যা ৬০ হাজার ছাড়িয়ে যাবার সম্ভাবনার কথা জানান তিনি।