বরিশালে দুই পুলিশ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ

প্রকাশিত: ৫:৫৯ অপরাহ্ণ, জুলাই ২৮, ২০১৯

স্টাফ রিপোর্টার॥ বাকেরগঞ্জ থানায় কর্মরত এসআই লোকমান হোসেনের বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা নেবার জন্য বরিশাল পুলিশ সুপারকে নির্দেশ দিয়েছেন। গতকাল বরিশালের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের জজ মো. আবু শামীম আজাদ ওই নির্দেশ দেন। ওই আদালতের স্টেনো কাওসার হোসেন টিটু জানান, গৌরনদীতে থাকাকালীন এসআই লোকমান হোসেন প্রতিবন্ধী কন্যা ধর্ষণ মামলার তদন্ত করেন। তদন্তে অভিযোগপত্রে ভিকটিম সাথী আক্তার, ডা. সুমি আক্তার ও ম্যাজিস্ট্রেট জাহিদুল কবির অভিযোগ পত্রে (চার্জশিট) সাক্ষী না থাকায় বিচারক প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য বরিশাল পুলিশ সুপারকে নির্দেশ দেন। পাশাপাশি এ ঘটনায় অন্য এক পুলিশ কর্মকর্তা জড়িত থাকায় তাকেও খুঁজে বের করে এই ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ দেন। মমতাজ বেগম মামলায় উল্লেখ করেন, ২০১৪ সনের ৬ ফেব্রুয়ারি দুপুরে বরিশাল জেলার গৌরনদী থানায় জয়শ্রীকাঠি গ্রামের প্রতিবন্ধী কন্যা ভিকটিমকে আসামি বাদীর কন্যাকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করেন। এ ব্যাপারে ২০১৪ সনের ৭ জুলাই মামলা হয়। মামলা হবার পর ২০১৪ সনের ৩১ আগস্ট মামলায় চার্জশিট দেন গৌরনদী থানার তৎকালীন এসআই লোকমান হোসেন। তিনি বর্তমানে বাকেরগঞ্জ থানায় কর্মরত রয়েছেন। অভিযোগপত্রে সাক্ষীদের নাম উল্লেখ না থাকায় বিচারক এক আদেশে গৌরনদী থানার তৎকালীন এসআই লোকমান হোসেনের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় বিভাগীয় ব্যবস্থা নেবার জন্য পুলিশ সুপারকে নির্দেশ দেন। এছাড়া এ ঘটনায় অন্য একজন পুলিশ কর্মকর্তা জড়িত। তাকেও খুঁজে বের করে বিভাগীয় ব্যবস্থা নেবার জন্য পুলিশ সুপারকে নির্দেশ দেন।

Sharing is caring!