বরিশালে চলমান মা ইলিশ সংরক্ষণ অভিযানে আরো ১৬ জনকে কারাদণ্ড

প্রকাশিত: ৮:১২ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ২৭, ২০২০

স্টাফ রিপোর্টার ॥

বরিশালে গত ১৪ অক্টোবর থেকে শুরু হওয়া প্রজননক্ষম (মা) ইলিশ সংরক্ষণ অভিযানে সর্বশেষ ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে ২১টি মামলায় ১৬ জন জেলেকে কারাদণ্ড দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। এসময় পাঁচজন জেলের কাছ থেকে ২৮০০০ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করা হয়।

এছাড়াও জেলেদের কাছ থেকে প্রায় এক লাখ মিটার কারেন্টজাল জব্দ করে পুড়িয়ে ধ্বংস করা হয়।
মঙ্গলবার সন্ধ্যায় এসব তথ্য নিশ্চিত করেছে বরিশাল জেলা প্রশাসন।

এদিকে গত ১৪ অক্টোবর থেকে এ পর্যন্ত মোট ৭৯টি অভিযানে ৩৪৯ টি মামলা করা হয়েছে। যেখানে জরিমানাকৃত ব্যক্তির সংখ্যা ৫৫ জন এবং কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে ২৯৪ জনকে। এছাড়া সর্বমোট ২ লাখ ৮৬ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করা হয়েছে। প্রায় ১৮ লক্ষ মিটার কারেন্ট জাল জব্দ করে তা পুড়িয়ে ফেলা হয়েছে।
জানা গেছে, ইলিশের প্রধান প্রজনন মৌসুমে মা ইলিশ রক্ষায় জেলা প্রশাসক এসএম অজিয়র রহমানের নির্দেশনায় ২৪ ঘণ্টায় জেলায় চারটি মোবাইল কোর্ট অভিযান পরিচালনা করেন বিভিন্ন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটরা।

বরিশালের হিজলা উপজেলায় সেখানকার নির্বাহী অফিসার কর্মকর্তা ও ম্যাজিস্ট্রেট বকুল চন্দ্র কবিরাজের নেতৃত্বে প্রজননক্ষম ইলিশ সংরক্ষণ অভিযান- ২০২০ উপলক্ষে বিভিন্ন পয়েন্টে মোবাইল কোর্ট অভিযান পরিচালিত হয়। মৎস্য সম্পদ রক্ষায় সরকারি নির্দেশনা অমান্য করে মাছ ধরার অপরাধে হিজলা উপজেলার বিভিন্ন নদীর পৃথক পৃথক স্থানে অভিযান পরিচালনা করে ১৩ জন জেলেকে আটক করা হয়। আটককৃত ১৩ জেলেকে ১ মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড প্রদান করা হয় । অধিকন্তু প্রায় ৭০০০০ মিটার জাল জব্দ ও পুড়িয়ে বিনষ্ট করা হয়।

মেহেন্দিগঞ্জ উপজেলায় মৎস্য সম্পদ রক্ষায় সরকারি নির্দেশনা অমান্য করে মাছ ধরার অপরাধে সেখানকার বিভিন্ন নদীতে পৃথক পৃথক অভিযান পরিচালনা করে ৩ জন জেলেকে আটক করা হয়। আটককৃত ২ জন জেলেকে ১ মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড এবং ১ জনকে ৪০০০ টাকা অর্থদণ্ড প্রদান করা হয়। অভিযানে প্রায় ৪৫০০ মিটার জাল ও প্রায় ৮ কেজি পরিমাণ ইলিশ মাছ জব্দ করা হয়। জাল পুড়িয়ে বিনষ্ট করা হয়। মাছ স্থানীয় এতিমখানা, মাদ্রাসা ও স্থানীয় দুস্থদের মাঝে বিলিয়ে দেয়া হয়।

জেলা প্রশাসন বরিশালের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মারুফ দস্তেগীর পরিচালিত মোবাইল কোর্ট অভিযানে প্রসিকিউশন অফিসার হিসেবে উপস্থিত থেকে সহায়তা প্রদান করেন উপজেলা মৎস্য অফিসার ভিক্টর বাইন। মেহেন্দিগঞ্জ উপজেলার বিভিন্ন নদীতে পৃথক পৃথক স্থানে পরিচালিত এই অভিযানসমূহে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষায় সার্বিক সহায়তা প্রদান করেন মেহেন্দিগঞ্জ থানা পুলিশ, কাজিরহাট থানা পুলিশ ও কালীগঞ্জ নৌ-পুলিশ ফাঁড়ির চৌকস পুলিশ দল।

বাবুগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ আমীনুল ইসলাম এর নেতৃত্বে অভিযানকালে প্রায় ৪৫০০০ মিটার নিষিদ্ধ কারেন্ট জাল জব্দ ও পুড়িয়ে বিনষ্ট এবং জব্দকৃত ১৮ কেজি ডিমওয়ালা ইলিশ এতিমখানায় বিতরণ করা হয়।

বানারীপাড়া উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মফিজুর রহমান এর নেতৃত্বে পরিচালিত মোবাইল কোর্ট অভিযানকালে সরকারী নির্দেশ অমান্য করে ইলিশ মাছ আহরণের সময় ৫ জন জেলেকে বানারীপাড়া থানা পুলিশ এর সহায়তায় আটক করা হয়। আটককৃত ১ জেলেকে ১ মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড ও ৪ জেলেকে ৬০০০ টাকা করে মোট ২৪০০০ টাকা অর্থদণ্ড প্রদান করা হয়। পাশাপাশি ২৫০০ মিটার জাল জব্দ ও পুড়িয়ে বিনষ্ট করা হয়।

Sharing is caring!