বরগুনায় যুবলীগ নেতার মুক্তির দাবীতে মুক্তিযোদ্ধা সন্তানদের অবস্থান ধর্মঘট

প্রকাশিত: ৮:২৯ অপরাহ্ণ, আগস্ট ১৩, ২০২০

তরিকুল ইসলাম রতন, বরগুনা প্রতিনিধি ॥

বরগুনায় জেলা মুক্তিযোদ্ধা সন্তানদের আয়োজনে যুবলীগ নেতা ও জেলা পরিষদের সদস্য অ্যাড. আরিফুল ইসলাম আরিফের মুক্তির দাবীতে অবস্থান ধর্মঘটের আয়োজন করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার সকাল ১১ টায় বরগুনা টাউনহল চত্বরে এ অবস্থান ধর্মঘট করা হয়।

এসময়ে বক্তারা আমতলী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মনিরা পারভীন এর ঔদ্ধত্যপূর্ণ আচরণের বিচার ও বীর মুক্তিযোদ্ধার সন্তান যুবনেতা অ্যাড. আরিফুল ইসলাম আরিফ এর বিরুদ্ধে মিথ্যা ও ষড়যন্ত্রমূলক মামলা প্রত্যাহার ও নিঃশর্ত মুক্তির দাবী জানান।

তারা আরও বলেন, এক জন বীর মুক্তিযোদ্ধার সন্তানকে কিভাবে একজন সরকারি উপজেলা কর্মকর্তা অকথ্য ভাষায় গালাগালি এবং তার গায়ে হাত তুলে আবার তার বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলাও দায়ের করেন। আমরা সুষ্ঠু তদন্ত সাপেক্ষে এর বিচার ও তার নিঃশর্ত মুক্তি চাই।

অবস্থান ধর্মঘটে জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ শাহবুদ্দিন সাবু বলেন, আমি মনে করি এটি একটি ন্যাক্কার জনক ঘটনা।

আরিফ একজন যুবলীগের নেতাই নন, একজন বীর মুক্তিযোদ্ধার সন্তান। তার উপরে ইউএনও যে অমানবিক নির্যাতন করেছেন এটি খুবই দুঃখজনক।
আমি ব্যক্তিগতভাবে এর সুষ্ঠু বিচার এবং অ্যাড. আরিফের মুক্তির দাবি করছি।

এসময়ে উপস্থিত থাকা বরগুনা জেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সম্পাদক ও জেলা যুবলীগের সংগ্রামী সভাপতি এ্যাড, মোঃ কামরুল আহসান মহারাজ বলেন, আমি আজ একজন মুক্তিযোদ্ধার সন্তান হিসেবে এই অবস্থান ধর্মঘটে অংশগ্রহণ করেছি। রাজনৈতিক নেতা হিসেবে নয়।

গত ৮ আগস্ট বরগুনার আমতলী সবুজবাগ লঞ্চঘাটে যে ঘটনাটি ঘটেছে আমরা সবাই তা কমবেশি অবগত রয়েছি। একজন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কিভাবে একজন মুক্তিযোদ্ধা সন্তানকে গালি দেন এবং তার গায়ে হাত তোলেন, তা আমার বোধগম্য নয়।

এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ গোলাম সরোয়ার টুকু, মারুফ মৃধা, অ্যাড. নাজমুল ইসলাম রাশেদ, গোলাম কিবরিয়া পিন্টু, সহ মুক্তিযোদ্ধা সন্তানগণ এবং নানা রাজনৈতিক, সামাজিক ও পেশাজীবী মানুষ।

Sharing is caring!