বরগুনায় ভূমি অফিসে ঘুষ না দেয়ায় ঘর-বাড়ি ভাংচুরের অভিযোগে সংবাদ সম্মেলন

প্রকাশিত: ৬:৫১ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১১, ২০২০

তরিকুল ইসলাম রতন, বরগুনা প্রতিনিধি ::

বরগুনার ভূমি অফিসকে ঘুষ না দেয়ায় বৈধ জমির ঘর- বাড়ি ভাংচুরের অভিযোগ এনে ভুক্তভোগী পরিবার সংবাদ সম্মেলন করেছে।

জানা যায়, ভূমি অফিসের কোন নোটিশ ছাড়াই বৈধ জমির ঘর-বাড়ি ভাংচুর ও উচ্ছেদের অভিযোগে এই সংবাদ সম্মেলন করেন তারা। বুধবার বেলা ১২ টায় বরগুনা সাংবাদিক ইউনিয়নের সম্মেলন কক্ষে এই সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

এসময়ে ভুক্তভোগী পরিবার লিখিত বক্তব্যে বলে, বরগুনা লাকুরতলা এলাকার মন্টু মল্লিকের রেকর্ডকৃত সম্পত্তিতে দোকানপাট ও ঘরবাড়ি স্থাপন করে বাস করে আসছিলেন তারা। এ অবস্থায় নির্মাণাধীন বসত ঘর মেরামত কাজ করতে গেলে ২নং গৌরীচন্না ইউনিয়ন (ভূমি) অফিসের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা বাধা দেন।

এরপর ৪ নভেম্বর সহকারী কমিশনার (ভূমি) বরাবরে আবেদন করে ওই পরিবার। পরে ওই পরিবারকে সহকারী কমিশনার (ভূমি) আশ্বস্ত করেন।

এর দুই -তিন দিন পরও কোন প্রতিকার না পাওয়ায় গত ৯ নভেম্বর বরগুনার সহকারী কমিশনার (ভূমি) এর অফিসের হেডক্লার্ক মনির ও সার্ভেয়ার মোশারেফ বলেন, রেকর্ডকৃত সম্পত্তির কাগজপত্র ভুয়া।

তারপর ভুক্তভোগী পরিবার সকল কাগজপত্র এবং পরিশোধিত খাজনার দাখিলা সহ প্রয়োজনীয় কাগজপত্র দেখালে মনির ও মোশারেফ বলেন, শুধু কাগজপত্র থাকলেই জমিতে টিকে থাকা যায় না। এরপর অফিস থেকে তাদেরকে বের করে দেওয়া হয়।

অফিস থেকে চলে আসার সময় ওই পরিবারের কাছে হেডক্লার্ক মনির ও সার্ভেয়ার মোশারফ হোসেন (৫০ হাজার) টাকা উৎকোচ দাবী করেন। টাকা দিলে তারা সহায়তা করবেন না বলেও জানান।

এবিষয়ে ভুক্তভোগী মন্টু মল্লিকের ছেলে রাকিব বলেন, আমরা তাদের দাবীকৃত টাকা দিতে অস্বীকার করি এবং বলি যে, সহকারী কমিশনার বরাবরে আবেদনের প্রেক্ষিতে আমরা সুষ্ঠু সমাধান চাই। কিন্তু ঐ দিনই রাত আনুমানিক পৌনে ৮ টার সময় পরিকল্পিত ভাবে ১০-১৫ জন ব্যক্তি মুখ বাধা অবস্থায় লাঠি সোটা নিয়ে আমার ফুফু ও দুই জন মহিলা সহ প্রতিবন্ধী শিশুর উপর অতর্কিত হামলা চালায়।

তারা বাসা থেকে বের হওয়ার চেষ্টা করলেও তাদেরকে বাসা থেকে বের হতে না দিয়ে ভাংচুর করে। এতে প্রায় ১ লক্ষ টাকার ক্ষতি হয়। এসময় মহিলাদের উপরে তারা হ্যামার নিয়ে আক্রমণ করে তাদেরকে গুরুতর জখম করে।

তিনি আরও বলেন, আমরা এ ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই এবং সুষ্ঠু তদন্ত সাপেক্ষে আপনাদের মাধ্যমে এর বিচার দাবী করছি।