বরগুনায় বিদ্রোহী প্রার্থীর স্ত্রী ও তার সমর্থকদের ওপর ‘ডিম’ হামলা

প্রকাশিত: ১০:২৩ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ২৪, ২০২১

তরিকুল ইসলাম রতন, স্টাফ রিপোর্টার ॥ বরগুনা পৌরসভার স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী শাহাদাত হোসেনের সহধর্মিণী ও তার দুই নারী সমর্থকের ওপর ডিম নিয়ে হামলা করেছেন ক্ষুদ্ধ ব্যবসায়ীরা।

জানা যায়, বরগুনা সদর উপজেলার আওয়ামী লীগ বিদ্রোহী ও স্বতন্ত্র প্রার্থী মেয়র শাহাদাত হোসেনের পক্ষে প্রচারণা চালানোর সময় তারা ডিম হামলার শিকার হন। রবিবার (২৪ জানুয়ারি) বিকাল আনুমানিক তিনটার দিকে বরগুনা প্রেসক্লাব গলিতে এ ঘটনা ঘটে।

এঘটনায় বিদ্রোহী প্রার্থী শাহাদাত হোসেনের স্ত্রী হেনারা বেগম, ইভা মনি (২০) ও তামান্না লাবনী (২৪) নামের তিনজন আহত হয়েছেন। প্রত্যক্ষদর্শীরা বলেন, স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থীর স্ত্রী হেনারা বেগমসহ কয়েকজন নারী লিফলেট বিতরণ করছিলেন। হঠাৎ এক যুবক খাঁচাভর্তি ডিম নিয়ে এসে তাদের লক্ষ্য করে ছুড়তে থাকেন। এসময় প্রচারে থাকা দুই তরুণী ওই যুবকের গেঞ্জি টেনে ধরে আটকাতে চেষ্টা করেও ব্যর্থ হন। ভুক্তভোগী বিদ্রোহী প্রার্থীর স্ত্রী হেনারা বেগম জানান, আমার স্বামী স্বতন্ত্র প্রার্থী শাহাদাত হোসেনের পক্ষে প্রচারণা চালানোর জন্যে বরগুনা পৌরসুপার মার্কেটের ব্যবসায়ীদের কাছে গিয়েছিলাম। সঙ্গে আমার বোনের দুই মেয়েসহ বেশ কয়েকজন নারী সমর্থক ছিলেন। হঠাৎ এক যুবক মুখে রুমাল দিয়ে আমাদের ওপর ডিম ছুড়তে থাকে।

একপর্যায়ে সেখান থেকে যাওয়ার পথে জেলা ছাত্রলীগ সভাপতি জুবায়ের আদনান অনিক ও সাধারণ সম্পাদক তানভীর হোসাইন উপস্থিত হয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন।
পরে খবর পেয়ে বরগুনা সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মেহেদী হাসান, সদর থানার ওসি তারিকুল ইসলাম, পরিদর্শক শহিদুল ইসলামসহ পুলিশ কর্মকর্তা ঘটনাস্থলে ছুটে আসেন।

এবিষয়ে জেলা ছাত্রলীগ সভাপতি জুবায়ের আদনান অনিক বলেন, ঘটনাস্থল দিয়ে যাওয়ার সময় জটলা দেখতে পাই। পরে সেখানে গিয়ে জানতে পারি, মেয়রের স্ত্রীসহ অন্যদের ওপর ক্ষুব্ধ ব্যবসায়ীদের কেউ ডিম ছুড়েছে।

প্রাথমিকভাবে পরিস্থিতি সামাল দিয়ে পুলিশকে খবর দেই। স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী শাহাদাত হোসেন বলেন, আমার প্রচারের শুরু থেকেই আমি হামলার ভয়ে বাসায় অবরুদ্ধ আছি। এই নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হওয়াটাই আমার অপরাধ। বরগুনা সদর সার্কেলের পুলিশ সুপার মফিজুর রহমান জানান, এঘটনায় এখনও মামলা হয়নি। তবে এঘটনা যারা ঘটিয়েছে তাদের আইনের আওতায় আনা হবে। তিনি আরও জানান, প্রত্যেক প্রার্থী যেন নিরাপদে প্রচার চালাতে পারেন সে জন্য যা যা ব্যবস্থা নেয়া প্রয়োজন পুলিশ তা নিয়েছে।

এব্যাপারে বরগুনা সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মেহেদী হাসান বলেন, এঘটনা যারা ঘটিয়েছে তাদের আইনের আওতায় আনা হবে।