বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে বুকে লালন করে বেঁচে থাকতে চাই- বরগুনার কামরুল আহসান মহারাজ

প্রকাশিত: ৫:৫৭ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১৫, ২০২০

তরিকুল ইসলাম রতন, বরগুনা প্রতিনিধি  ::

বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে বুকে লালন করে বেঁচে থাকতে চান বরগুনা জেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সম্পাদক ও জেলা যুবলীগের সভাপতি এ্যাড কামরুল আহসান মহারাজ।

তিনি বলেন, চিন্তা থাকা সত্তে¡ও বঙ্গবন্ধুর আদর্শে জীবন চালাতে তৃণমূল জনগণের কাছে যাওয়ার অনুপ্রেরণায় কাজ করছি। জননেত্রী শেখ হাসিনার আদর্শেই বাকিটা জীবন জনগণের মাঝে বিলীন করতে চাই।

বরগুনা জেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সম্পাদক, জেলা যুবলীগের সভাপতি, জেলা দুদকের পিপি ও সাবেক ছাত্র নেতা এ্যাড কামরুল আহসান মহারাজ তার নিজ বাসভবনে সৌজন্য সাক্ষাৎকালে সাংবাদিকদের এ কথা বলেন তিনি।

তিনি বলেন, জীবন মানেই নিরন্তর ছুটে চলা পদে পদে বাধা বিপত্তি প্রতিকূলতার রক্তাক্ত, ক্ষতবিক্ষত হওয়া। সে ক্ষত মুছে আবার প্রবল আড়্রাসে ঝাঁপিয়ে পড়া সংগ্রাম এবং সাফল্য এইতো জীবন, মানুষ মরেও অমর হয়ে থাকে তার জীবনের কৃতকর্ম ও সৎ গুণাবলীর মাঝে।

আজকের সমাজে এমন মহৎ কাজে মানুষের অভাব পরিলক্ষিত করতে পেরে এমন কিছু উন্নয়নের কাজে অংশগ্রহণ করেছি। প্রতিদানে কিছুই না দিতে পেরে তৃপ্ত হয়েছি।

দীর্ঘ রাজনৈতিক ক্যারিয়ারের বরগুনা জেলা যুবলীগে দীর্ঘ সময় পার করেছি এবং বর্তমানেও দায়িতরত অবস্থায় আছি।
তাছাড়া জেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সম্পাদক ও দীর্ঘ দিন জেলা দুদকের পিপি হিসেবে সুনামের সাথে দায়িত্বরত রয়েছি।

বিভিন্ন সময়ে অনেক রাজনীতিবিদদের উত্থান হয়েছে কিন্তু সার্বিক সমীকরণে এ্যাড কামরুল আহসান মহারাজ দূরদর্শিতা সততা ধরে রাখতে পেরেছেন।
স্বৈরাচার বিরোধী আন্দোলন ও বিভিন্ন সঙ্কটময় মুহূর্তে কয়েকবার জেল খেটেছেন। তিনি এসেছেন সেই কিশোর বয়স থেকে হাঁটি হাঁটি পায়ে ছাত্ররাজনীতি হতে বিকশিত হয়ে আজ আওয়ামী লীগের জনপ্রিয় শীর্ষ রাজনৈতিক নেতায় পরিণত হয়েছেন। জনপ্রিয়তায় বরগুনা জেলার সাধারণ মানুষের সাথে রয়েছে তার গভীর সম্পর্ক।

হাস্যোজ্জ্বল এই নেতা করোনা ভাইরাসের শুরু পর থেকেই নিজ ব্যক্তিগত উদ্যোগে বরগুনায় কর্মহীন, অসহায় ও দুঃস্থ মানুষদের মাঝে ত্রাণ ও সুরক্ষা সামগ্রী বিতরণ করে যাচ্ছেন।

তাছাড়াও তিনি বরগুনার অসহায় মানুষকে আইনি সহায়তাসহ দরিদ্র সাধারণ মানুষকে সহযোগিতা করে আসছেন এবং আগামী দিনেও তিনি অসহায় মানুষের পাশে থাকবেন এটাই তার অঙ্গিকার।

এছাড়াও বরগুনা পৌর শহরের সকল উন্নয়নের কাজে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখার প্রত্যয় ব্যক্ত করেছেন তিনি।

Sharing is caring!