ফেসবুকে অশ্লীল পোস্ট, বিচার না পেয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা বরগুনার যুবতীর


Deprecated: get_the_author_ID is deprecated since version 2.8.0! Use get_the_author_meta('ID') instead. in /home/ajkerbarta/public_html/wp-includes/functions.php on line 4861
প্রকাশিত: ৮:১১ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ৫, ২০২০

তরিকুল ইসলাম রতন, বরগুনা প্রতিনিধি ॥

বরগুনায় এক যুবতীর নামে ফেসবুকে অশ্লীল পোস্ট দেওয়ায় থানায় জিডি। কোন বিচার না পেয়ে যুবতীর বিষ পানে আত্মহত্যার চেষ্টা।
জানা যায়, তাইমুন নামের এক যুবক ফেসবুকে বরগুনা সদর উপজেলার ফুলঝুড়ি ইউনিয়নের ছোট গৌরীচন্না গ্রামের মহিলা মেম্বার লাইলী বেগমের ১৮ বছরের মেজ মেয়েকে নিয়ে আপত্তিকর লেখা ও ছবি আপলোড করে।

পরে থানায় জিডি করে পুলিশের কোন সহায়তা না পেয়ে বিষ পানে আত্মহত্যার চেষ্টা করে মেয়েটি। মুমূর্ষু অবস্থায় তাকে বরগুনা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করে ওয়াশ করা হয়। বর্তমানে সে বিপদ মুক্ত বলে জানা গেছে।

একই গ্রামের মীর নজরুল ইসলাম খোকনের ছেলে এই তাইমুন।

এবিষয়ে যুবতীর মা লাইলী বেগম জানান, তার প্রতিবেশী তাইমুন নিজের ফেস বুক আইডি দিয়ে গত ২৬ ও ২৮ আগস্ট তার মেয়েকে নিয়ে ফেস বুকে অশ্লীল ছবি ও লেখা পোস্ট করে। মহিলা মেম্বর লাইলী বেগম শনিবার বলেন, তাইমুন আমার মেয়ে ও আমাদের ছবি দিয়ে পৃথক দুইটি আইডি দিয়ে অশ্লীল পোস্ট আপলোড করে আমাদের মান সম্মান নষ্ট করে দিয়েছে। আমি জনগণের নির্বাচিত প্রতিনিধি। আমার ও আমার মেয়েদের সম্মান তাইমুন নষ্ট করে দিয়েছে। আমি ৩০ আগস্ট বরগুনা থানায় একটি সাধারণ ডায়েরী (জিডি) করি। পুলিশ কোন ব্যবস্থা না নেওয়ায় আমার মেজ মেয়ে মনের কষ্টে ও লজ্জায় শুক্রবার সন্ধ্যায় কীটনাশক পান করে আত্মহত্যার চেষ্টা চালায়। পরে দ্রুত বরগুনা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করি তাকে।

তিনি আরও বলেন, তাইমুনের মায়ের সঙ্গে নির্বাচন করে আমি মেম্বার নির্বাচিত হয়েছি। সেই থেকে ওরা আমাদের ক্ষতি করে যাচ্ছে। আমি জিডি করার পর পুলিশ তাইমুনকে আটক করলে এমন ঘটনা ঘটতো না। পাঁচদিনেও পুলিশ জিডির তদন্ত কিংবা ঘটনা স্থলে যায়নি।

বরগুনা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (তদন্ত) শহিদুল ইসলাম মিলন বলেন, এবিষয়ে আমাদের একজন এএসআইকে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। খোঁজ নিয়ে আপনাদেরকে জানানো হবে।