ফিটনেস টেস্টে ফেল করায় ফিজিওর সঙ্গে এ কেমন আচরণ আকমলের!

প্রকাশিত: ১:৫১ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ২, ২০২০

বিতর্ক আর উমর আকমল যেন সমার্থক শব্দ। পাকিস্তানের ক্রিকেট ইতিহাসের অন্যতম প্রতিভাবান ব্যাটসম্যান মনে করা হয় আকমলকে। অথচ নিজের ভুলেই ক্যারিয়ারটার বারোটা বাজিয়ে ছেড়েছেন উইকেটরক্ষক এই ব্যাটসম্যান।বিতর্ক যেখানে, সেখানেই হাজির উমর আকমল। যেচে নিজের কাঁধে দোষ আনতে উস্তাদ। কখনও সতীর্থের সঙ্গে মারামারি করে, কখনও কোচের সঙ্গে দুর্ব্যবহার কিংবা নির্বাচকদের নিয়ে বেফাঁস মন্তব্য। মাঠ ও মাঠের বাইরে বরাবরই বিতর্কিত আকমল।

এবার পাকিস্তানের এই ক্রিকেটার নতুন করে আলোচনায় আসলেন ফিজিওর সঙ্গে দুর্ব্যবহার করে। শুধু দুর্ব্যবহার বললে ভুল হবে, আকমল যা করলেন, একজন ক্রিকেটারের কাছ থেকে এমন আচরণ কল্পনা করাও কঠিন।

জাতীয় দলের হয়ে শেষ টেস্ট খেলেছেন সেই ২০১১ সালে। গত বছর দীর্ঘ বিরতির পর সীমিত ওভারে সুযোগ পেলেও জায়গা ধরে রাখতে পারেননি। তবে ঘরোয়া লিগে দুর্দান্ত পারফর্ম করে আবারও নির্বাচকদের নজরে এসেছেন উমর আকমল।কায়েদে আজম ট্রফিতে শেষ ছয় ইনিংসের মধ্যে একটি সেঞ্চুরি ও একটি ডাবল সেঞ্চুরি করেছেন। সেঞ্চুরি ইনিংসটি ছিল ১২২ রানের। আর ২১৮ রানের ডাবল সেঞ্চুরি ইনিংসে ২০টি চার আর ৮টি ছক্কা হাঁকান ডানহাাতি এই ব্যাটসম্যান।এমন পারফরম্যান্সের পর পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি) ফিটনেস টেস্টে ডেকেছিল আকমলকে। জাতীয় দলে ফেরার পথ প্রশস্ত করতে বিনয়ী-ভদ্র হবেন কি, উল্টো সেই ফিটনেস টেস্টের দিনেই নতুন কাণ্ড ঘটিয়ে বসেছেন।ফিটনেস টেস্টে উত্তীর্ণ হতে পারেননি আকমল। কিন্তু ফলটা তার পছন্দ হয়নি। হতাশা থেকে ফিজিওকে ধরে বসেন। তার সামনে গিয়ে শার্ট খুলে রূঢ় ভঙ্গিতে বলে উঠেন-আমার শরীরে চর্বি কোথায়, দেখান!এমন আচরণের বিষয়টি চলে গেছে পিসিবি পর্যন্ত। নির্বাচকরা উমর আকমলের বিরুদ্ধে অভিযোগ করেছেন। ফলে জাতীয় দলে ফেরা তো দূরের পথ, আপাতত নতুন কি শাস্তির মুখে পড়েন তিনি, সেটাই দেখার।

Sharing is caring!