প্রাথমিক-ইবতেদায়ি পরীক্ষা শুরু রোববার

প্রকাশিত: ৭:১০ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১৪, ২০১৯

প্রাথমিক ও ইবতেদায়ি সমাপনী পরীক্ষা আগামী ১৭ নভেম্বর থেকে শুরু হচ্ছে। এই পরীক্ষায় এবার ২৫ লাখ ৫৩ হাজার ২৬৭ জন ছাত্র-ছাত্রী অংশ নেবে। এর মধ্যে ছাত্র সংখ্যা ১১ লাখ ৮১ হাজার ৩০০ জন ও ছাত্রী সংখ্যা ১৩ লাখ ৭১ হাজার ৯৬৭ জন। গত বছরের তুলনায় এ সংখ্যা ২ লাখ ২৩ হাজার ৬১৫ জন কমেছে।

আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে সাংবাদিকদের এসব তথ্য জানান মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী জাকির হোসেন।

ইবতেদায়ি শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষায় ৩ লাখ ৫০ হাজার ৩৭১ জন পরীক্ষার্থী অংশ নেবে। যার মধ্যে ছাত্র সংখ্যা ১ লাখ ৮৭ হাজার ৮২ এবং ছাত্রী সংখ্যা ১ লাখ ৬৩ হাজার ২৮৯ জন। এ পরীক্ষায় গতবারের তুলনায় ৩০ হাজার ৯৮৩ জন পরীক্ষার্থী বেড়েছে।

প্রাথমিক ও ইবতেদায়ি শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষা ২০১৯-এ মোট ছাত্রের চেয়ে ছাত্রীর সংখ্যা ১ লাখ ৬৬ হাজার ৮৭৪ জন বেশি।

জাকির হোসেন বলেন, ‘এটি আশাব্যঞ্জক যে, মেয়েরা প্রতিটি ক্ষেত্রে ক্রমশ এগিয়ে আসছে। আরও আশার কথা এই যে, প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষায় ৩ হাজার ৩৪৭ জন এবং ইবতেদায়ি শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষায় ২৩৬ জন বিশেষ চাহিদা সম্পন্ন পরীক্ষার্থী অংশগ্রহণ করবে।’

এবার সারা দেশে সাত হাজার ৪৫৮টি কেন্দ্রে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। এ ছাড়া দেশের বাইরে আটটি রাষ্ট্রের ১২টি কেন্দ্রে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। কেন্দ্রগুলো হলো- সৌদি আরব-৪, সংযুক্ত আরব আমিরাত-২, বাহরাইন-১, ওমান-১, কুয়েত-১, লিবিয়া-১, গ্রিস-১ ও কাতার-১। বিদেশে অবস্থিত কেন্দ্রগুলোতে পরীক্ষার্থী আছে ৬১৫ জন। এর মধ্যে ছাত্র ২৮৯ ও ছাত্রী ৩২৬ জন।

প্রতিমন্ত্রী জানান, সমাপনী পরীক্ষা সুষ্ঠু ও স্বচ্ছতার সঙ্গে সম্পন্নের জন্য ইতিমধ্যে যাবতীয় কর্মকাণ্ড সম্পন্ন করা হয়েছে। বিশেষ ব্যবস্থা ও নিরাপত্তার সঙ্গে প্রশ্নপত্র প্রণয়ন, মুদ্রণ ও বিতরণ কাজ শেষ হয়েছে। প্রশ্নপত্র বিশেষ নিরাপত্তা ব্যবস্থায় জেলা/উপজেলা পর্যায়ে পৌঁছে দেওয়া হয়েছে এবং তা সংশ্লিষ্ট থানা/ট্রেজারি হেফাজতে রাখা হয়েছে।

পরীক্ষার দিন সর্বোচ্চ নিরাপত্তা বজায় রেখে সংশ্লিষ্ট প্রশ্নপত্র উপজেলা থেকে কেন্দ্র সচিবের নিকট পৌঁছে দেওয়া হবে। দুর্গম এলাকার ১৮৪টি কেন্দ্রে বিশেষ ব্যবস্থায় প্রশ্নপত্র পাঠানো হয়েছে বলেও জানান প্রতিমন্ত্রী জাকির হোসেন।

সংবাদ সম্মেলনে মন্ত্রণালয়ের সচিব আকরাম আল হোসেন, প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক এ এফ আর মনজুর কাদিরসহ মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।

Sharing is caring!