প্রতিশ্রুতি দিলেও এখন ঋত্বিককে বিয়ে করতে চান না শ্রাবন্তী!

প্রকাশিত: 11:29 AM, October 21, 2019

ওপার বাংলার জনপ্রিয় অভিনেত্রী শ্রাবন্তীর লম্বা চুলে মুগ্ধ হয়ে বিয়ে করতে চেয়েছিলেন অভিনেতা ঋত্বিক চক্রবর্তী। তাকে বিয়ের প্রতিশ্রুতিও দিয়েছিলেন শ্রাবন্তী। এরপর তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্কও তৈরি হয়। কিন্তু ঋত্বিককে এখন আর বিয়ে করতে চান না শ্রাবন্তী! ভাবছেন, মে মাসে তৃতীয় বিয়ে করে দিব্যি সংসার করছেন নায়িকা। সোশ্যাল মিডিয়ার তাদের সুখময় দাম্পত্যের ছবিও ভাইরাল হচ্ছে-এরই মধ্যে আবারও চতুর্থ বিয়ে! আসলে শ্রাবন্তীর চতুর্থ এই বিয়ের খবরটি বাস্তবে নয়, রূপালি পর্দায়।

এক মজাদার চুলের গল্প নিয়েই হাজির হচ্ছে সুরিন্দর ফিল্মস প্রযোজিত, অভিমন্যু মুখোপাধ্যায় পরিচালিত ছবি ‘টেকো’। রবিবার মুক্তি পেয়েছে ‘টেকো’র ট্রেলার। সেখানেই ঋত্বিককে বিয়ে করতে অস্বীকার করেন শ্রাবন্তী।

ছবিটির ট্রেলারে দেখা যাচ্ছে, চুলের প্রেমে এক্কেবারে হাবুডুবু অবস্থা অলোকেশের। নিজের চুলকে তো ভালোবাসেনই, ভালোবাসেন লম্বা চুলের নারীদেরও। লম্বা চুল রয়েছে এমন পাত্রীকেই তিনি বিয়ে করবেন ঠিক করেই রেখেছেন সরকারি চাকরিজীবী অলোকেশ। লম্বা চুল দেখে মীনাকেই তাই বিয়ে করবেন বলে ঠিক করে ফেললেন অলোকেশ। মাথায় যথেষ্ঠ চুল রয়েছে, তারপরও আরও ঘন চুলের আশায় বিজ্ঞাপন দেখে ব্যোমকেশ তেল মেখে ফেললেন অলোকেশ। কিন্তু একী কাণ্ড! চুল গজানোর বদলে অলোকেশের মাথার ঘন চুল উঠে টাক পড়ে গেল। এরপর টাক দেখে অলোকেশকে বিয়ে করতেই অস্বীকার করলেন মীনা।

ছবিতে অলোকেশের ভূমিকায় দেখা যাবে ঋত্বিক চক্রবর্তীকে। আর মীনার ভূমিকায় শ্রাবন্তী চট্টোপাধ্যায়। ভারতীয় গণমাধ্যমের খবর, টেকো সিনেমায় মূলত ভুয়া বিজ্ঞাপন থেকে মানুষকে সচেতন হওয়ার বার্তা দেওয়া হয়েছে।

Share Button