পুলিশের কোন বদনাম অসহনীয়- বিএমপি কমিশনার


Deprecated: get_the_author_ID is deprecated since version 2.8.0! Use get_the_author_meta('ID') instead. in /home/ajkerbarta/public_html/wp-includes/functions.php on line 4861
প্রকাশিত: ১০:২৮ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ৯, ২০২১

স্টাফ রিপোর্টার ॥ বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার মো. শাহাবুদ্দিন খান বলেছেন, পৃথিবীর সব মানুষ খারাপ হলেও ‘মা’ এর কোন বদনাম যেমন অসহনীয়, তেমনি রাষ্ট্রের গুরুত্বপূর্ণ বিভাগ পুলিশের কোন বদনাম অসহনীয়। নির্ভুল নিরপেক্ষ তথ্য উপস্থাপন করেও কখনো কখনো ক্ষণিকের বদনাম পোহাতে হয়। সুতারং মানবাধিকার সমুন্নত রেখে নির্ভেজাল আইন প্রয়োগ করে অপরাধ দমনে যদটুকু সক্ষমতা প্রয়োজন তা প্রয়োগ করতে হবে।

বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশের (বিএমপি) বিভিন্ন পদমর্যাদার সদস্যদের নিয়ে ‘উদ্দীপনা মূলক কর্মশালা-২০২১’ এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি’র বক্তৃতায় তিনি এ কথা বলেছেন। এর আগে শনিবার (০৯ জানুয়ারি) সকাল ১০টায় নগরীর বান্দ রোডস্থ চাঁদমারি পুলিশ অফিসার্স মেসে’র সম্মেলন কক্ষে এ কর্মশালার আয়োজন করে বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশ। এতে সভাপতিত্ব করেন বিএমপি সদর দপ্তরের উপ-পুলিশ কমিশনার আবু রায়হান মুহাম্মদ সালেহ্। এসময় প্রধান অতিথি আরও বলেন, আমরা মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী। আমাদের শৃঙ্খলাগুলো বিশ্ব স্বীকৃত, আমরা রাষ্ট্রের সুরক্ষায় অতি বিশ্বস্ত আগুয়ান এক বাহিনী, যাঁদের জনগণকে পাশে নিয়ে অগ্রভাগ থেকে সেবা নিশ্চিত এর চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করতে হয়। সেই চেতনা অবশ্যই বজায় রেখে নতুন বছরের উদ্যম কাজে লাগিয়ে আরও শৃঙ্খলার সাথে পেশাদারিত্বকে সবার আগে তুলে ধরতে হবে।

 

‘অপরাধ নির্মূলে বাংলাদেশ পুলিশের অপরিসীম সক্ষমতা রয়েছে, অপরিনামদর্শী বা অপেশাদার কর্মকাণ্ডের সুযোগ নেই উল্লেখ করে বিএমপি কমিশনার আরও বলেন, ‘সরকারের দেয়া সর্বোচ্চ সুযোগ সুবিধায় সন্তুষ্ট থেকে জনগণের জানমালের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার প্রত্যয়ে, নিয়ত ঠিক রেখে চাকরি করলে বেহেশতে যাওয়ার পথ সুগম রয়েছে। তাই প্রতিটি তদন্তে যেন সঠিক চিত্র উঠে আসে। পেশার বাহিরে দূরভিসন্ধিমূলকভাবে লাভবান হওয়ার জন্য কোন অন্যায় চেষ্টা অনুকম্পা অগ্রহণযোগ্য কোন আচরণ বরদাস্ত করা হবে না। বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার (সদর দপ্তর ও পিএমটি) রুনা লায়লা’র সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত কর্মশালার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে গেস্ট স্পিকার হিসেবে ‘শিষ্টাচার ও সদাচারণ’ শীর্ষক আলোচনা করেন অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার প্রলয় চিসিম। এছাড়া ডকুমেন্টারি প্রদর্শনী শীর্ষক আলোচনা করেন অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার রুনা লায়লা।

এসময় অন্যান্যদের মধ্যে আরও উপস্থিত ছিলেন- বিএমপি’র সাপ্লাই এন্ড লজিস্টিকস বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার মো. জুলফিকার আলি হায়দার, দক্ষিণ বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার মো. মোকতার হোসেন, ট্রাফিক বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার মোহাম্মদ জাকির হোসেন মজুমদার, উত্তর বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার মো. খাইরুল আলম, ক্রাইম এন্ড অপস বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার খাঁন মুহাম্মদ আবু নাসের, গোয়েন্দা বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার মো. মনজুর রহমান।