পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রীর সাবেক এপিএস হাদিস মীর গ্রেফতার : নকল সীলমোহর উদ্ধার

প্রকাশিত: ৫:২৭ অপরাহ্ণ, জুন ১৮, ২০২০

স্টাফ রিপোর্টার ॥ চাকরি থেকে অব্যাহতির খবর প্রকাশের এক দিনের মাথায় পুলিশের হাতে গ্রেফতার হয়েছেন পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রীর সাবেক ব্যক্তিগত কর্মকর্তা (এপিএস) হাদিস মীর। বুধবার সন্ধ্যার দিকে কাউনিয়া থানা পুলিশ তাকে আটক করে নিজেদের হেফাজতে নেয়। পরে ঢাকা থেকে আসা ডিএমপি’র গোয়েন্দা (ডিবি) শাখার একটি টিম এসে তাকে ঢাকায় নিয়ে যায়।

 

গতকাল বৃহস্পতিবার দিনভর তাকে রাজধানীর মিন্টু রোডে গোয়েন্দা কার্যালয়ে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। হাদিস মীরকে বরিশাল থেকে ঢাকায় নিয়ে যাওয়া ডিবি টিমের সদস্য উপ-পরিদর্শক (এসআই) আসিফ এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, গুরুতর নানা অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে হাদিস মীরকে আটক করে থানায় নিয়ে আসা হয়েছে।

 

খোঁজ নিয়ে জানাগেছে, ‘হাদিস মীরের বিরুদ্ধে প্রতিমন্ত্রীর ব্যক্তিগত কর্মকর্তা থাকাবস্থায় টিআর, কাবিখার টাকা আত্মসাত, নিজ গ্রামের বাড়ি সাপানিয়ায় স্বামী-স্ত্রীকে মারধর করে উল্টো মামলা দিয়ে গ্রেফতার করিয়ে জেলে পাঠানোর অভিযোগ রয়েছে। এছাড়াও প্রতিমন্ত্রীর নাম ভাঙিয়ে প্রশাসনিক সুযোগ সুবিধা নিয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে হাদিস মীরের বিরুদ্ধে। বরিশাল মহানগরীর কাউনিয়া থানার অফিসার ইন-চার্জ (ওসি) আব্দুল আজিজ জানান, ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের নির্দেশে হাদিস মীরকে তার নিজ এলাকা থেকে আটক করে থানায় নিয়ে আসা হয়। পরে ঢাকা থেকে আসা ডিবি পুলিশের একটি টিম নিজেদের হেফাজতে তাকে ঢাকায় নিয়ে গেছে।

 

এদিকে ডিএমপি’র জয়েন্ট কমিশনার (ডিটেকটিভ ব্র্যাঞ্চ) মাহাবুব আলম সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, হাদিস মীরের কাছ থেকে বিভিন্ন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তার নাম এবং দপ্তরের প্রচুর সীলমোহর উদ্ধার করা হয়েছে। তাঁর কাছে এসব সীলমোহর থাকার কথা ছিল না। কিভাবে তাঁর কাছে এসব সীলমোহর গেল, এগুলো দিয়ে তিনি কি করছিলেন তা জিজ্ঞাসাবাদ ও তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। পরবর্তীতে এই বিষয়ে বিস্তারিত বলা যাবে।

 

প্রসঙ্গত, গত ১৬ জুন পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রীর ব্যক্তিগত কর্মকর্তার পদ থেকে অব্যাহতি প্রদান করা হয় হাদিস মীরকে। ওই দিন মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা মোবাশ্বের উল ইসলাম স্বাক্ষরিত এক চিঠির মাধ্যমে বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়। এ খবর গণমাধ্যমে প্রকাশের এক দিন পরেই পুলিশের হাতে আটক হন হাদিস মীর।

Sharing is caring!