পটুয়াখালীর মির্জাগঞ্জে তিন সন্তানের জননীকে গণধর্ষণ : আটক ৩

প্রকাশিত: ৯:০১ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১৭, ২০২১

জামাল আকন, পটুয়াখালী প্রতিনিধি ॥ পটুয়াখালী মির্জাগঞ্জে ধর্ষণের শিকার তিন সন্তানের জননী বাদী হয়ে রোববার দুপুরে তিনজনের নাম উল্লেখ করে মির্জাগঞ্জ থানায় মামলা দায়ের করেছেন। এ ঘটনায় জলিলুর রহমান জলিল (৪০), রাজ্জাক অরফে রাজা সিকদার (৪০) ও মো. সজিব শিকদার (২৪) কে আটক করেছে পুলিশ। গণধর্ষণের শিকার তিন সন্তানের জননী বলেন, আগামী নির্বাচনে সংরক্ষিত আসন থেকে কাউন্সিলর পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার লক্ষ্যে বিভিন্ন বাড়ি বাড়ি ঘুরে প্রচারণা চালাচ্ছিলেন তিনি। শনিবার রাতে চুন্নু ফকিরের বসত ঘরের পূর্বপাশের জলিলুর রহমান জলিল, রাজ্জাক ওরফে রাজা সিকদার ও মো. সজিব শিকদার তাকে ধর্ষণ করে।

 

মামলার বরাত দিয়ে মির্জাগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শওকত আনোয়ার জানান, শ্রীনগর গ্রামের হোসেন ফকিরের ছেলে চুন্নু ফকিরের ঘরে নারীদের কাছে দোয়া চেয়ে শনিবার রাত ৯টার দিকে বাড়ি ফিরছিলেন ভুক্তভোগী। এ সময় আগে থেকে ওৎ পেতে থাকা জলিল, সজিব ও রাজাসহ অন্যান্যরা মিলে ভুক্তভোগীর মুখ চেপে রাস্তার পাশে ধানক্ষেতে নিয়ে যায়। সেখানে জলিল তাকে ধর্ষণ করার সময় অজ্ঞান হয়ে পড়লে তাকে মৃত ভেবে সবাই চলে যায়।

পরে রাত ১১টার দিকে ভুক্তভোগীর জ্ঞান ফিরলে তার ডাকচিৎকারে আশেপাশের লোকজন ছুটে এসে তাকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। পরে থানায় লিখিত অভিযোগ দিলে রাত ৩টার দিকে নিজ নিজ বাড়ি থেকে ওই তিনজনকে গ্রেফতার করা হয়। ঘটনা শুনে পটুয়াখালীর পুলিশ সুপার তাৎক্ষণিকভাবে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মাহফুজ রহমানকে ঘটনাস্থলে পাঠান।

ভুক্তভোগীকে ডাক্তারি পরীক্ষা সম্পন্নের জন্য পটুয়াখালীর ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালে পাঠানোর ব্যবস্থা করা হচ্ছে। ডাক্তারি পরীক্ষার রিপোর্ট আসলে পরবর্তীতে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলেও জানান তিনি। এদিকে এ ঘটনায় এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। এলাকাবাসী এহেন ঘৃণিত কাজের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে অপরাধীদের আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবী করেছেন।