নগরীতে স্বাস্থ্যবিধি না মানায় ৪৪ ব্যক্তি এবং ৬ ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা

প্রকাশিত: ১১:৩২ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ১, ২০২০

স্টাফ রিপোর্টার ::

মহামারি করোনা ভাইরাসের প্রকোপ রোধ এবং জনসচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে বরিশালে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে অভিযান পরিচালনা করেছে জেলা প্রশাসন। এসময় ৪৪ জন ব্যক্তি এবং ৬ ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানকে ২৩ হাজার টাকা অর্থ দণ্ড প্রদান করা হয়েছে। মঙ্গলবার সকাল থেকে বেলা ২ টা পর্যন্ত নগরীর জনসমাগমস্থলে এই অভিযান পরিচালিত হয়।

 

জানা গেছে, বরিশাল জেলায় কোভিড-১৯ এর সম্ভাব্য দ্বিতীয় সংক্রমণ প্রতিরোধে জেলা ম্যাজিস্ট্রেট ও জেলা প্রশাসক এস এম অজিয়র রহমান জেলার সর্বত্র স্বাস্থ্য বিধি অনুসরণে ‘মাস্ক পরিধান করুন, সেবা নিন’ শীর্ষক প্রচারণার পদক্ষেপ গ্রহণ করেন এবং তা বাস্তবায়নে ব্যাপক উদ্যোগ নেন। এরই অংশ হিসেবে মঙ্গলবার বরিশাল মহানগরীর বিভিন্ন এলাকায় ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা, মাস্ক বিতরণ ও সচেতনতা কার্যক্রম গ্রহণ করা হয়।

 

মঙ্গলবার সকাল ১১টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত বরিশাল মহানগরীর চকবাজার, বাজার রোড, জেলখানা মোড় এবং সদর রোড এলাকায় নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ আলী সুজা এর নেতৃত্বে মোবাইল কোর্ট অভিযান পরিচালনা করা হয়।

অভিযানকালে বাজারে আগতদের মাস্ক ব্যবহারে উৎসাহিতকরণ ও সামাজিক দূরত্ব রেখে চলাফেরা এবং মাস্ক ব্যতীত কেউ যাতে কোন প্রকার সেবা না পায় সেটি নিশ্চিত করার জন্য বিভিন্ন দোকান মালিক ও ব্যবসায়ীদের নির্দেশনা প্রদান করা হয়। পাশাপাশি জেলা প্রশাসন কর্তৃক প্রচারপত্র নো-মাস্ক নো-সার্ভিস সম্বেলিত ফেস্টুন এবং ফ্রি মাস্ক বিতরণ করা হয়। অভিযান চলাকালে মাস্ক ব্যবহার না করায় ২৫ পথচারী ও ৬ ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানকে ১২ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

 

অপর একটি অভিযানে নগরীর বটতলা, নথুল্লাবাদ, কাশিপুর বাজার এলাকায় সকাল ১১ টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রুমানা আফরোজ। এ সময় বিভিন্ন অপরাধে ৯ ব্যক্তি কে ৭২০০ টাকা জরিমানা করেন তিনি।

এদিকে সন্ধ্যায় নগরীর লঞ্চ ঘাট এলাকায় মোবাইল কোর্ট অভিযান পরিচালনা করেন জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নিরুপম মজুমদার। এসময় স্বাস্থ্যবিধি না মানায় ১০ ব্যক্তিকে মোট ৩৮ শ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। মোবাইল কোর্ট অভিযান পরিচালনায় সহায়তা করেন আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা।