নগরীতে পৃথক অভিযানে ২৭ ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানে জরিমানা : একজনের কারাদণ্ড

প্রকাশিত: ৫:১৩ অপরাহ্ণ, জুন ১৮, ২০২০

স্টাফ রিপোর্টার ॥ করোনা পরিস্থিতিতে স্বাস্থ্যবিধি প্রতিপালনের অংশ হিসেবে গতকাল বৃহস্পতিবার সকাল থেকে নগরীর বিভিন্ন এলাকায় মোবাইল কোর্ট অভিযান পরিচালনা করেছেন জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটগণ। এসময় বিভিন্ন অপরাধে ২৩ ব্যক্তি ও ৪ প্রতিষ্ঠানকে বিভিন্ন হারে অর্থদণ্ড ও একজনকে কারাদণ্ড প্রদান করা হয়েছে। এছাড়া দণ্ডিতদের কাছ থেকে নগদ ১৯ হাজার ৩শত টাকা জরিমানা আদায় করা হয়।

 

এর মধ্যে সকাল ১১টায় নগরীর নথুল্লাবাদ ও চৌমাথা এলাকায় মোবাইল কোর্ট অভিযান পরিচালনা করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. আতাউর রাব্বী। এসময় মাস্ক না পরে ঘোরাফেরা করার অপরাধে পাঁচ যাত্রী ও পথচারীকে এক হাজার ৭শত টাকা অর্থদণ্ড প্রদান করা হয়। সকাল সাড়ে ১১টার দিকে নগরীর বাংলাবাজার, সাগরদী ও রূপাতলী বাসস্ট্যান্ড এলাকায় মোবাইল কোর্ট অভিযান পরিচালনা করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট শরীফ মোহাম্মদ হেলাল উদ্দীন। এসময় মাস্ক না পরে ঘোরাফেরার অপরাধে ৬ যাত্রী ও পথচারীকে দুই হাজার ২শত টাকা অর্থদণ্ড দেন তিনি।

 

বেলা ১২টা থেকে দুপুর দেড়টা পর্যন্ত বটতলা বাজার এলাকায় মোবাইল কোর্ট অভিযান পরিচালনা করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মনিরা খাতুন। এসময় স্বাস্থ্যবিধি না মেনে ঘোরাফেরা ও ব্যবসায়িক কাজ পরিচালনার অপরাধে চার ব্যক্তি ও দুই প্রতিষ্ঠানকে পৃথকভাবে ৯ হাজার টাকা জরিমানা করেন তিনি। একই সময় নগরীর চৌমাথা এলাকায় মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রুম্পা ঘোষ। এসময় স্বাস্থ্যবিধি না মেনে ঘোরাফেরা ও ব্যবসা পরিচালনার অপরাধে দুই ব্যক্তি ও দুই প্রতিষ্ঠানে তিন হাজার ২শত টাকা জরিমানা করেন।

 

এছাড়া বেলা সাড়ে ১২টা থেকে দুপুর দেড়টা পর্যন্ত নগরীর চকবাজার, বাংলাবাজার, আমতলার মোড় ও সদর রোড এলাকায় অভিযান পরিচালনা করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট শাহাদাৎ হোসেন। এসময় মাস্ক ব্যবহার না করায় ছয় ব্যক্তিকে দুই হাজার ৭শত টাকা অর্থদণ্ড এবং মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে এক ব্যক্তিকে সাত দিনের বিনাশ্রম কারাদণ্ড, সাথে পাঁচশত টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও তিন দিনের কারাদণ্ড প্রদান করেন তিনি। জেলা প্রশাসনের নেতৃত্বে পৃথক পাঁচটি মোবাইল কোর্টে আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় সহযোগিতা করে মেজর আতিক এর নেতৃত্বাধীন ৬২ ইস্ট বেঙ্গল রেজিমেন্টের একটি সেনাদল, র‌্যাব-৮ এর একটি টিম ও বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশের পৃথক দুটি টিম।