দৌলতখান পৌরসভা নির্বাচনকে ঘিরে টান টান উত্তেজনা : ধাওয়া-পাল্টাধাওয়া অব্যাহত

প্রকাশিত: ৭:১২ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ২১, ২০২০

মো. গজনবী, দৌলতখান প্রতিনিধি ::

আসন্ন পৌরসভা নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা না হতেই উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে দৌলতখানের নির্বাচনী মাঠ। গত ২ দিনে প্রার্থীদের মধ্যে একাধিকবার ধাওয়া-পাল্টাধাওয়া, সংঘর্ষ ও ইটপাটকেল নিক্ষেপের ঘটনা ঘটেছে । মঙ্গলবার রাতের ঘটনার রেশ ধরে ফের বুধবার সকালে দৌলতখান বাজারের বিউটি রোডে দুই প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টাধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। এ নিয়ে পৌরবাসীর মধ্যে আতংক বিরাজ করছে। বাজারের সাধারণ ব্যবসায়ীরা তাদের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান নিয়ে পড়েছেন বিপাকে ।

উল্লেখ্য, মঙ্গলবার রাতে ভোলা-২ আসনের সংসদ সদস্য আলী আজম মুকুল দৌলতখানে উপজেলা আওয়ামীলীগের দলীয় কার্যালয়ে আসেন। এ সংবাদ পেয়ে আওয়ামীলীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী জাকির হোসেন তালুকদার ও হামিদুর রহমান টিপু লোকজন নিয়ে দলীয় কার্যালয়ের দিকে এগিয়ে আসেন। দু-পক্ষ দলীয় কার্যালয়ের সামনে মুখোমুখি হলে তাদের মধ্যে সংঘর্ষ ছড়িয়ে পড়ে। উভয় পক্ষের সমর্থকরা শিলাবৃষ্টির মত ইট-পাথর ও কাঁচের দ্রব্য ছুড়তে থাকে।

মুহূর্তের মধ্যে বন্ধ হয়ে যায় যান চলাচল। এতে করে সাধারণ জনগণ ও ব্যবসায়ীদের মধ্যে আতংক ছড়িয়ে পড়ে। এসময় ব্যবসায়ীরা দোকানপাট বন্ধ করে ফেলেন। টানা কয়েক ঘণ্টা ব্যাপী সংঘর্ষ ও ইটপাটকেল নিক্ষেপ চলতে থাকে। এতে প্রায় ২৫ জন আহত হন।

আহতদের মধ্যে নুরুল ইসলাম (৩০), নিয়াজ (২৫), রাছেল (২৫), ভুট্টু (৩০), হারুন (২৫), হেজু (৩০) , আনোয়ার, জাহাঙ্গীর ও তরুন শিকদার দৌলতখান উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে চিকিৎসা নিয়েছেন। পুলিশ ঘটাস্থলে এসে টিয়ারশেল নিক্ষেপ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এ ঘটনায় ২ প্রার্থী একে অপরের বিরুদ্ধে পাল্টা-পাল্টি বক্তব্য দিয়েছেন।

দৌলতখান থানার ওসি বজলার রহমান বলেন, পৌর নির্বাচনকে কেন্দ্র করে মঙ্গলবার রাতে দুই মেয়র প্রার্থীর প্রচারণা চলাকালে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে পুলিশের একটি টিম ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

Sharing is caring!