দৌলতখানে ১০ ভুয়া পরীক্ষার্থীসহ মাদ্রাসা সুপার আটক: ২ জনের জেল

প্রকাশিত: ১:০৩ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ৫, ২০২০

দৌলতখান প্রতিনিধি ॥ ভোলার দৌলতখানে চলমান ৩দাখিল হাদিস পরীক্ষায় ১০ ভুয়া পরীক্ষার্থীসহ মাদ্রাসার সুপারকে আটক করা হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার দুপুর সাড়ে ১২ টায় দৌলতখান আবু আবদুল্লা কলেজের মাদ্রাসা কেন্দ্রের ৯ নং কক্ষ থেকে তাদেরকে আটক করা হয়।

আটককৃতদের মধ্যে জয়নগর দাখিল বালিকা মাদ্রাসার সুপার মাওলানা জাকির হোসেনকে ২ বছর ও ভুয়া পরীক্ষার্থী লিমা আক্তারকে ১ বছরের বিনাশ্রম কারাদ- দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। অপর ৯ জনের বিরুদ্ধে কিশোর অপরাধে নিয়মিত মামলা দায়ের করা হয়েছে। তারা হলো- লিজা আক্তার, নিয়ামা আক্তার রাবেয়া সুলতানা, ময়না আক্তার, হামিদা বেগম, নাজমুন নাহার , বিবি খাদিজা, রুমা বেগম, ইমা আক্তার ও ফারজানা আক্তার।

এদের মধ্যে আঁখি বেগম (রোল:২০৭২৩২) এর স্থলে লিজা আক্তার, ফাতেমা বেগম (রোল: ২০৭২২৯) এর স্থলে নিয়ামা আক্তার, উম্মে হাবিবা (রোল: ৬২৯১০৪) এর স্থলে রাবেয়া সুলতানা, সুমাইয়া আক্তার (রোল: ৬২৯১০৩) এর স্থলে ময়না আক্তার, আসমা বেগম (রোল: ২০৭২৩০) এর স্থলে হামিদা বেগম, দৌলতখানে ১০ ভুয়া শিলা আক্তার (রোল: ২০৭২৭১) এর স্থলে নাজমুন নাহার, বিবি খাদিজা (রোল: ২০৭২২৭) এর স্থলে বিবি খাদিজা, নুপুর বেগম ( রোল: ২০৭২২৮) এর স্থলে রুমা বেগম, বিবি হাজেরা (রোল: ২০৭২২৫) এর স্থলে ইমা আক্তার ও সাদিয়া আক্তার (রোল: ৬২৯১০২) এর স্থলে ফারজানা আক্তার পরীক্ষায় অংশ নেয়।

ভোলা জেলার অতিরিক্ত প্রশাসক (সার্বিক) মোঃ আতাহার মিয়া জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জেলা প্রশাসক মাসুদ আলম সিদ্দিক’র নির্দেশে আমি ও জেলা শিক্ষা অফিসের সহকারী কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সাইফুল ইসলাম এবং নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রেজওয়ানা চৌধুরী কেন্দ্র থেকে জাকির হোসেনকে ও পরীক্ষার কক্ষ থেকে ১০ ভুয়া পরীক্ষার্থীকে আটক করি।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সাইফুল ইসলাম দৌলতখান উপজেলা নির্বাহী অফিসে সাংবাদিকদের ব্রিফিংকালে বলেন, দৌলতখান জয়নগর বালিকা দাখিল মাদ্রাসার পরীক্ষায় আসল পরীক্ষার্থীদের পরিবর্তে অন্য শিক্ষার্থী দিয়ে (বডি চেন্স করে) ভুয়া পরীক্ষা দেওয়ায় মাদ্রাসার সুপারসহ ১১ জনকে আটক করা হয়েছে। পরে ভ্রাম্যমাণ আদালতে পাবলিক পরীক্ষাসমূহ অপরাধ আইন ১৯৮০ এর ধারা-১৩ এবং ধারা-৩ লঙ্গনের দায়ে সুপার মাওলানা জাকির হোসেনকে ২ বছরের ও ভুয়া পরীক্ষার্থী লিজা আক্তারকে ১৯৮০ এর ধারা -৩ ধারা লঙ্ঘনের দায়ে ১ বছরের বিনাশ্রম কারাদ- দেওয়া হয়।

Sharing is caring!