দুষ্ট আত্মাদের জন্য বিএমপি কমিশনার শাহাবুদ্দিন খানের কঠোর হুঁশিয়ারি

প্রকাশিত: ১০:২৮ অপরাহ্ণ, আগস্ট ২৪, ২০২০

স্টাফ রিপোর্টার ॥ বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার মো. শাহাবুদ্দিন খান- বিপিএম (বার) বলেছেন, ‘এই করোনার সময়ে কর্তব্য পালন করার পাশাপাশি মানবিক গুণাবলী নিয়ে জনগণের পাশে দাঁড়িয়ে আমাদের সত্যিকারের হিউম্যান ফেসগুলো আরও বেশি ফুটিয়ে তুলতে সক্ষম হয়েছি। তবে এখনো যদি কোথাও কোন দুষ্ট আত্মা ঘোরাফেরা করে তাদের জন্য কঠোর হুঁশিয়ারি।

সোমবার (২৪ আগস্ট) সকালে নগরীর পুলিশ লাইন্স ড্রিল সেডে বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশের (বিএমপি) কল্যাণ সভায় সভাপতির বক্তৃতায় তিনি এ কথা বলেছেন।

এসময় বিএমপি কমিশনার আরও বলেন, ‘আমরা কল্যাণের যত কিছু আছে তা দিতে প্রস্তুত। তবে কোন অনিয়ম অপেশাদারিত্ব বরদাস্ত করা হবে না। সীমার মধ্যে থেকে আইন প্রয়োগ করে অপরাধ দমন করতে হবে। অপেশাদার সুলভ কোন আচরণ করা চলবে না। যেই জনগণের টাকায় আমরা বেতন রেশনসহ সকল সুযোগ-সুবিধা ভোগ করছি, সেই জনগণের প্রতি মানবিক ও প্রকৃত সেবা মূলক আচরণ করা হচ্ছে কি- না তা সেবা প্রত্যাশীদের ফোন করে নিয়মিত যাচাই করা হচ্ছে। কেউ যদি অপেশাদার, শৃঙ্খলা পরিস্থিতির বদনাম ডেকে আনার চেষ্টা করে, তাকে বিন্দুমাত্র ছাড় দেয়া হবে না।

তিনি বলেন, ‘ছোট ছোট ছাড় দিতে দিতে অনেক বড় খেসারত দিতে হয়। তাই কোন ছাড় নয়, এটাই ফার্স্ট, এটাই লাস্ট। জনগণের সাথে খারাপ আচরণ এর মত গর্হিত কাজের বিরুদ্ধে কঠোর আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে। থানা আমাদের মূল সেবা কেন্দ্র, কেউ যেন সেবা প্রত্যাশীর বিড়ম্বনা বা চোখের পানির কারণ না হয়।

নগর পুলিশ প্রধান বলেন, ‘আমরা স্বাস্থ্যসুরক্ষা বিধি মেনেই আগের মত বিট পুলিশিং, ওপেন হাউজ ডে, কমিউনিটি পুলিশিং এর মাধ্যমে জনগণের সাহায্য-সহযোগিতা নিয়ে আভিযানিক কার্যক্রম আরো শক্তিশালী করে একটি নিরাপদ বরিশাল গড়ে তুলবো। একই সাথে আগামী ২০৪১ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে একটি উন্নত সমৃদ্ধ রাষ্ট্র হিসেবে বিশ্বের দরবারে উপহার দিতে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী যে কর্মসূচি হাতে নিয়েছেন, তা বাস্তবায়নে সবাই সত্যিকার অর্থে আন্তরিক হয়ে কাজ করবো ইনশাআল্লাহ্।

বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার (সদর-দপ্তর) রুনা লায়লার সঞ্চালনায় মাসিক কল্যাণ সভায় অন্যান্যদের মাঝে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার প্রলয় চিসিম, উপ-পুলিশ কমিশনার (ক্রাইম অপারেশন এন্ড প্রসিকিউশন) মো. জুলফিকার আলি হায়দার, উপ-পুলিশ কমিশনার (সদর দপ্তর) আবু রায়হান মুহাম্মদ সালেহ, উপ-পুলিশ কমিশনার (নগর বিশেষ শাখ) জাহাঙ্গীর হোসেন মল্লিক, উপ-পুলিশ কমিশনার (ট্রাফিক) মোহাম্মদ জাকির হোসেন মজুমদার- পিপিএম, উপ-পুলিশ কমিশনার (উত্তর) মো. খাইরুল আলম, উপ-পুলিশ কমিশনার (দক্ষিণ) মো. মোকতার হোসেন- পিপিএম (সেবা), উপ-পুলিশ কমিশনার সাপ্লাই এন্ড লজিস্টিকস খান মুহাম্মদ আবু নাসের, উপ-পুলিশ কমিশনার (ডিবি) মো. মনজুর রহমান- পিপিএম প্রমুখ।

Sharing is caring!