‘দিস ইজ দ্যা লাস্ট ট্রিটমেন্ট, এর পর আর ছাড় নয়- শাহাবুদ্দিন খান

প্রকাশিত: ৯:৩৫ অপরাহ্ণ, জুলাই ২৬, ২০২০

স্টাফ রিপোর্টার ॥ দুর্নীতির বিরুদ্ধে বলতে গিয়ে বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশ (বিএমপি) কমিশনার মো. শাহাবুদ্দিন খান- বিপিএম (বার) বলেছেন, “দিস ইজ দ্যা লাস্ট ট্রিটমেন্ট” এর পরে আর ছাড় দেয়া হবে না। এখনো কোন পুলিশ সদস্য দুর্নীতির সাথে জড়িত থাকলে তা থেকে ফিরে আসুন।

রোববার সকালে নগরীর পুলিশ লাইন্স ড্রিল সেডে অনুষ্ঠিত বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশের কল্যাণ সভায় অংশ নেয়া পুলিশের বিভিন্ন বিভাগের শীর্ষ কর্মকর্তাদের উদ্দেশ্যে বিএমপি কমিশনার এই হুঁশিয়ারি দিয়েছেন। অনুষ্ঠিত কল্যাণ সভায় সভাপতিত্ব করেন বিএমপি কমিশনার মো. শাহাবুদ্দিন খান।
এসময় সভাপতির বক্তৃতায় তিনি আরও বলেন, ‘মাদকের জন্য যেমন রিহেবিলিটেশন রয়েছে তেমনি দুর্নীতির জন্যও রয়েছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও মাননীয় আইজিপি মহোদয় মাদক এবং দুর্নীতি নির্মূলের পদক্ষেপ নিয়েছেন। এর পরেও যদি কোন বিপথগামী পুলিশ সদস্য এই দুর্নীতি থেকে বের হয়ে না আসতে পারে, ভালো হতে না পারে তবে তাকে ভালো করার কঠোর ব্যবস্থা রয়েছে।

বিএমপি কমিশনার আরও বলেন, ‘দেশকে মাদক মুক্ত করতে হলে আগে পুলিশকে মাদক মুক্ত হতে হবে। নিজেরা মাদক মুক্ত হয়ে সমাজ থেকে মাদককে চির বিদায় জানাতে হবে। সকল প্রকার অন্যায় অপরাধ তথা দুর্নীতি থেকে পুলিশকে মুক্ত থাকতে হবে। সবাই নিজ নিজ অবস্থান থেকে মাদক ও দুর্নীতিসহ সকল প্রকার অপরাধ প্রবণতার বিরুদ্ধে কাজ করলে এ দেশটি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নের সোনার বাংলাদেশে পরিণত হবে।

কল্যাণ সভায় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার প্রলয় চিসিম, উপ-পুলিশ কমিশনার (ক্রাইম অপারেশন অ্যান্ড প্রসিকিউশন) মো. জুলফিকার আলী হায়দার, উপ-পুলিশ কমিশনার (দক্ষিণ) মো. মোখতার হোসেন, উপ-পুলিশ কমিশনার (দক্ষিণ) মো. খাইরুল আলম, অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার (সাপ্লাই অ্যান্ড লজিস্টিকস) খান মুহাম্মদ আবু নাসের, অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার (ডিবি) মো. মনজুর রহমান, অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার (উত্তর) মো. জাকারিয়া রহমান জিকু প্রমুখ।

কল্যাণ সভায় বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনারের সাথে জোন এবং বিভাগ ভিত্তিক এক বছরের বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তি সম্পন্ন হয়।

Sharing is caring!