দাবি আদায়ে বরিশালে নার্সদের মানববন্ধন: বিক্ষোভ-সড়ক অবরোধ

প্রকাশিত: ১১:৪২ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ৮, ২০২১

স্টাফ রিপোর্টার ॥ কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের পেশেন্ট কেয়ার টেকনোলজি কোর্সের শিক্ষার্থীদের বাংলাদেশ নার্সিং কাউন্সিল থেকে নার্সিং লাইসেন্স প্রদানের সিদ্ধান্ত বাতিলসহ তিন দফা দাবিতে বরিশালে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করা হয়েছে। সম্মিলিত নার্সেস সংগ্রাম পরিষদ এর ব্যানারে সোমবার সকাল ১০টায় নগরীর বান্দ রোডস্থ শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সামনে এই মানববন্ধন ও বিক্ষোভ অনুষ্ঠিত হয়। আন্দোলনের একপর্যায় আন্দোলনকারীরা সড়কের ওপর অবস্থান নিয়ে অবরোধ সৃষ্টি করে বিক্ষোভ প্রদর্শন করেন। এর ফলে আমতলার মোড় থেকে লঞ্চঘাট সড়কে যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। সৃষ্টি হয় দীর্ঘ যানজট। তাদের অন্য দাবি দুটি হল- এফডব্লিউভি (ফ্যামিলি ওয়েলফেয়ার ভিজিটর) ডিপ্লোমা ইন মিডওয়াইফ সমমান দেওয়ার প্রতিবাদ এবং পাঁচ ফেব্রুয়ারি বাংলাদেশ নার্সিং ও মিডওয়াইফারি কাউন্সিলের অধীনস্ত নার্সিং শিক্ষার্থীদের স্থগিত হওয়া কমপ্রিহেনসিভ লাইসেন্স পরীক্ষা পুনরায় গ্রহণ করা।

মানববন্ধন চলাকালে আন্দোলনকারীরা তাদের তিন দফা দাবি’র যৌক্তিকতা তুলে ধরে বক্তব্য রাখেন। পাশাপাশি এ দাবি না মানা হলে আগামিতে কেন্দ্রীয় সিন্ধান্ত অনুযায়ী আরও কঠোর কর্মসূচি দেয়ার হুঁশিয়ারি দেন তারা।

 

বাংলাদেশ স্বাধীনতা নার্সেস পরিষদ (স্বানাপ) বরিশাল জেলার সভাপতি ও সেবা তত্ত্বাবধায়ক সেলিনা আক্তারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত ঘণ্টাব্যাপী এই মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন স্বানাপ শেবাচিম শাখার সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান, বরিশাল নার্সিং কলেজ ইন্সট্রাক্টর সাইফ হোসেন রনি ও আলী আজগর, জেনারেল হাসপাতালের সিনিয়র স্টাফ নার্স শাহাবুদ্দিন খান, নার্সিং কলেজের শিক্ষার্থী তপু রায়হান প্রমুখ।
এছাড়া, সরকারি এবং বেসরকারি বিভিন্ন নার্সিং কলেজের শিক্ষার্থী, বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতাল এবং ক্লিনিকের নার্সবৃন্দ এই কর্মসূচিতে অংশগ্রহণ করেন।
এদিকে, ‘মানববন্ধনের এক পর্যায় আন্দোলনকারীরা বান্দ রোডের একাংশে অবরোধ সৃষ্টি করে বিক্ষোভ প্রদর্শন করেন। এতে যানবাহন ও রোগীদের চলাচলে সমস্যার সৃষ্টি হয়।
পরে পুলিশ এসে আন্দোলনকারীদের সাথে কথা বলে তাদের সড়ক থেকে সরিয়ে দিয়ে পরিস্থিতি স্বাভাবিক করে বলে জানিয়েছেন নগর পুলিশের ট্রাফিক বিভাগের পরিদর্শক মো. আবদুর রহিম।