তিনটি নির্দেশনা দিয়ে গোটা দেশকে ঝুঁকিপূর্ণ ঘোষণা


Deprecated: get_the_author_ID is deprecated since version 2.8.0! Use get_the_author_meta('ID') instead. in /home/ajkerbarta/public_html/wp-includes/functions.php on line 4861
প্রকাশিত: ৩:০৪ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ১৬, ২০২০

দেশে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ আশঙ্কাজনকভাবে বেড়ে যাওয়ায় গোটা দেশকে ঝুঁকিপূর্ণ ঘোষণা করা হয়েছে। সেইসঙ্গে নাগরিকদের উদ্দেশে তিনটি নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। এসব নির্দেশনা ভঙ্গ করলে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।গোটা দেশকে ঝুঁকিপূর্ণ ঘোষণা করেছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর

আজ বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় সরকারের স্বাস্থ্য অধিদপ্তর এই আদেশ জারি করে। আদেশে স্বাক্ষর করেছেন স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল কালাম আজাদ।

এতে বলা হয়, গোটা বিশ্বে করােনাভাইরাস মহামারি আকারে ছড়িয়ে পড়েছে। ইতোমধ্যে এতে লক্ষ লক্ষ লোক আক্রান্ত এবং লক্ষাধিক মানুষের মৃত্যু হয়েছে। বাংলাদেশের বিভিন্ন এলাকায়ও ভাইরাসটির সংক্রমণ ঘটেছে। সর্দি, হাঁচি, কাশি ও পরস্পরের মেলামেশার কারণেই কোভিড-১৯ এর বিস্তার ঘটে। আজ পর্যন্ত এর কোনো প্রতিষেধক বা ওষুধ আবিষ্কার হয়নি।

আদেশে আরো বলা হয়, বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থার নির্দেশনায় বলা হয়েছে, কোভিড-১৯ থেকে বাঁচার একমাত্র উপায় হলো পরস্পর থেকে নির্দিষ্ট দূরত্বে অবস্থান করা। জনসাধারণের পারস্পারিক মেলামেশা বন্ধ করা ছাড়া যেহেতু ভয়ংকর এই ভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকানো সম্ভব নয় এবং যেহেতু বাংলাদেশের অনেক জায়গায় ভাইরাসটির বিস্তার ঘটেছে-

তাই সংক্রামক রােগ (প্রতিরােধ, নিয়ন্ত্রণ ও নির্মল) আইন, ২০১৮ (২০১৮ সালের ৬১ নং আইন) এর ১১ (১) ধারার ক্ষমতাবলে গোটা বাংলাদেশকে করোনা সংক্রমণের ক্ষেত্রে ঝুঁকিপূর্ণ এলাকা ঘােষণা করা হলাে।

আদেশে সংক্রমিত এলাকার জনসাধারণকে তিনটি নির্দেশ কঠোরভাবে অনুসরণের অনুরােধ
করা হয়। সেগুলো হলাে-

# মরণঘাতী করােনাভাইরাসের সংক্রমণ প্রতিরোধে জনগণকে অবশ্যই ঘরের ভেতর অবস্থান করতে হবে। অতি জরুরি প্রয়ােজন ছাড়া বাইরে যাওয়া যাবে না;

# জনগণের এক এলাকা থেকে অন্য এলাকায় যাতায়াত কঠোরভাবে নিয়ন্ত্রণ করা হলাে; এবং

# সন্ধ্যা ছয়টা থেকে সকাল ছয়টা পর্যন্ত কেউ ঘরের বাইরে যেতে পারবে না।

যথাযথ কর্তৃপক্ষের অনুমােদনক্রমে আজ ১৬ এপ্রিল ২০২০ এই আদেশ জারি করা হলাে উল্লেখ এতে বলা হয়,  আদেশ অমান্য করলে তাদের বিরুদ্ধে ওপরে বর্ণিত আইনের ধারা অনুযায়ী কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এ ছাড়া স্থানীয় স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষ সংশ্লিষ্ট সরকারি প্রশাসন ও কর্তৃপক্ষের সহায়তায় আইনের সংশ্লিষ্ট অন্য ধারাগুলাে প্রয়ােগ করার ক্ষমতা সংরক্ষণ করবে বলেও আদেশে উল্লেখ করা হয়।

আজ বৃহস্পতিবার পর্যন্ত সরকারের স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তথ্য অনুযায়ী দেশে এ পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ১ হাজার ৫৭২ জন।  মারা গেছেন ৬০ জন। চিকিৎসা শেষে সুস্থ হয়েছেন ৪৯ জন। গত ৮ মার্চ দেশে প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হয়।