তালতলীতে গৃহবধূকে নির্যাতনের ঘটনায় ভুক্তভোগী পরিবারের সংবাদ সম্মেলন

প্রকাশিত: ৫:৫২ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১০, ২০২০

তরিকুল ইসলাম রতন, বরগুনা প্রতিনিধি  ::

বরগুনার তালতলী উপজেলায় এক গৃহবধূকে পেটানোর অপরাধে প্রতিপক্ষ কামাল মেল্লার বিরু বরগুনা জেলা সাংবাদিক ইউনিয়নে সংবাদ সম্মেলন করেছে ভুক্তভোগী পরিবার।

বৃহস্পতিবার (১০ সেপ্টেম্বর) সকাল ১০ টায় বরগুনা সাংবাদিক ইউনিয়নের সম্মেলন কক্ষে এই সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

বরগুনার তালতলী উপজেলায় রুজিনা বেগম নামের এক গৃহবধূকে প্রকাশ্যে রাস্তায় ফেলে মারধর ও তার শ্লীলতাহানির অভিযোগ এনে তালতলী উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম আহŸায়ক মোঃ হাবিবুর রহমান কামাল মোল্লাসহ ৩ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করে ভুক্তভোগী পরিবার ।

জানা যায়, গত মঙ্গলবার (০৮ সেপ্টেম্বর) রাত আনুমানিক ১১ টার দিকে গৃহবধূ বাদী হয়ে তালতলী থানায় একটি মামলা করেন। এ ঘটনায় ভুক্তভোগী নারী বাদী হয়ে সাগর মুসল্লী,শ্রী সাগর ও উপজেলা যুবলীগে যুগ্ম আহবায়ক হাবিবুর রহমান কামাল মোল্লাকে আসামী করে এক মামলা দায়ের করেন।
এব্যাপারে রুজিনা বেগম তার লিখিত অভিযোগে সাংবাদিকদের জানান, বরগুনার তালতলী থানায় আমার দায়ের কৃত মামলার ১নং সাক্ষী জলিলুর রহমানকে নিয়ে তালতলী বাজারের মনিকা সাতক্ষীরা দধি ঘরের ভিতরে পারিবারিক সমস্যা নিয়ে আলাপ আলোচনা করি।

এসময়ে ১নং আসামী সাগর এসে মোবাইল দিয়ে আমার ও জলিলের ছবি তুলতে থাকে। আমি আমাদের ছবি মোবাইলে কেন তুলছেন জিজ্ঞেস করলে সাগর আমার শরীরের আপত্তিকর স্থানে হাত দিয়ে শ্লীলতাহানি করে এবং আমার সাথে অশ্লীল ব্যবহার করে। তখন আমি জোর প্রতিবাদ করলে আসামী সাগর আমাকে এলোপাতাড়ি ভাবে কিল, ঘুষি মারতে থাকে।

পরে ২নং আসামী শ্রী সাগর অন্য আসামীদেরকেও খবর দেয়। ৩নং আসামী কামাল মোল্লা এসে অন্য আসামীদের সহায়তায় আমাকে টেনে নামায়, এবং বলে আমার অফিসে চল।

আমি যেতে অনিচ্ছা প্রকাশ করলে তালতলী চৌরাস্তায় (উজ্জ্বল চত্বর) এ বসে কামাল মোল্লা আমাকে অকথ্য ভাষায় গালি গালাজ করে এবং থাপ্পড় মারে।
পরে স্থানীয়রা আমাকে উদ্ধার করে এবং দ্রুত থানায় এসে আমি তাদের বিরুদ্ধে এজাহার দায়ের করি।

তিনি আরও জানান, তালতলী উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক কামাল মোল্লা আমাকে এই মামলা তুলে নেওয়ার জন্য নানা হুমকি দিয়ে আসছে।
মামলা না তুলে নিলে আমাকে ও আমার পরিবারকে সে দেখে নেবে। আমি ও আমার পরিবার বর্তমানে নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি এবং আপনাদের একান্ত সহযোগিতা কামনা করছি।

Sharing is caring!