তরীকত পন্থী হলে আল্লাহর সাহায্য পাওয়া যায় – ছারছীনার পীর ছাহেব

প্রকাশিত: ৭:৪৫ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ২, ২০২১

ছারছীনা থেকে মোঃ আবদুর রহমান ॥ আমীরে হিযবুল্লাহ্ ছারছীনা শরীফের হযরত পীর ছাহেব কেবলা আলহাজ্ব হযরত মাওলানা শাহ্ মোহাম্মাদ মোহেব্বুল্লাহ আখেরী মুনাজাত পূর্ব বয়ানে ছারছীনা শরীফের প্রতিষ্ঠাতা পীর মরহুম শাহসূফী হযরত মাওলানা নেছার উদ্দিন আহমদ (রহ.) এর কথা উল্লেখ করে বলেন- তিনি এমন উচ্চ স্তরের আল্লাহর ওলী ছিলেন যে, একদা তিনি কারো হাদীয়া দেয়া মুরাব্বা খেতে গেলে উক্ত মুরাব্বা হতে আওয়াজ শুনতে পেয়েছিলেন, ‘নেছারুদ্দিন আমাকে খেয়োনা আমি সুদের মাল’। হযরত পীর ছাহেব কেবলা বলেন, দাদা হুজুর কেবলা এ নেয়ামত প্রাপ্ত হয়েছিলেন, তরীকা মশক করার কারণে। তাই সহজে দীনের পথে চলতে হলে তরীকা মশ্কের কোন বিকল্প নেই। তিনি সকলকে তরীকত পন্থী হবার পরামর্শ দিয়ে নিয়মিত ওজীফা আদায়ের প্রতি গুরুত্বারোপ করেন।

ছারছীনা দরবার শরীফের প্রতিষ্ঠাতা পীর কুত্বুল আলম শাহ্সূফী হযরত মাওলানা নেছার উদ্দিন আহমদ (রহ.) এর ৬৯তম এবং তদীয় জানেসীন মুজাদ্দেদে যামান হযরত মাওলানা শাহ্ আবু জা’ফর মোহাম্মাদ ছালেহ (রহ.) এর ৩১তম ইন্তেকাল বার্ষিকী উপলক্ষ্যে গতকাল ছারছীনা দরবার শরীফে আয়োজিত মাঘ মাসের ঈছালে ছাওয়াব মাহফিলের সমাপনী দিবসে আখেরী মুনাজাতের পূর্বে হযরত পীর ছাহেব কেবলা একথা বলেন।

ছারছীনা দরবার শরীফে আয়োজিত বাৎসরিক তিনটি মাহফিলের মধ্যে মাঘ মাসের মাহফিলটি এক অনন্য বৈশিষ্টে সমুজ্জল। সমাপনী দিবসে কুরআন ও হাদীসের তাত্মিক আলোচনার সাথে ছারছীনা দরবার শরীফের মরহুম পীর ছাহেব কেবলাদ্বয়ের জীবনী, খেদমত, কারামাত ও কারনামা নিয়ে আলোচনা চলমান থাকে। বাদ এশা রাত ১২ টার পর ছারছীনা মাদরাসার আছাতিজায়ে কেরাম ও জুলফিকার হামদ-না’ত ও গজল পরিবেশক দলের সদস্যদের পরিবেশনায় নির্বাচিত কেরাত, হামদ, না’ত, কাসীদা, কথিকা, ও মনোজ্ঞ মীলাদ কিয়াম অনুষ্ঠিত হয়। বিশিষ্ট গজল লেখক ও সাহিত্যিক মাওলানা আবু জা’ফর মোঃ অহিদুল আলমের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানটি । শেষ রজনীতে ফজরের পূর্বক্ষণে হাজার হাজার ওলামা, তালেবুল এলেম, পরহেযগার- মুত্তাকী লমুসল্লীদের অংশ গ্রহণের মাধ্যমে অনুষ্ঠিত আখেরী মুনাজাতে বিগত জীবনের গোনাহ্ খাতা মাফ চেয়ে রোণাজারীতে আকাশ বাতাস ভারী হয়ে ওঠে। হযরত পীর ছাহেব কেবলা অশ্রু সিক্ত নয়নে দেশবাসী ও বিশ^ মুসলিমের কল্যান কামনা করেন। বিশেষ করে বর্তমান করোনা মহামারীর কবল হতে বিশ^বাসীর মুক্তির জন্য তিনি বারে গাহে এলাহীতে ফরিয়াদ করেন। সে এক অভূতপূর্ব দৃশ্যের অবতারণা হয়ে থাকে যা না দেখলে অনুধাবন করা যায় না। তাই অনেকে খাস ভাবে এই মীলাদ মাহফিলে যোগদান করে থাকেন।

 

আখেরী মুনাজাতে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন মরহুম হযরত পীর ছাহেব কেবলার সফরসঙ্গি আবু জাফর মোহাম্মদ শামসুদ্দোহা, স্বরূপকাঠী পৌরসভার নব নির্বাচিত মেয়র জনাব গোলাম কবীর ও নেছারাবাদ থানার অফিসার ইনচার্জ জনাব আবির মোহাম্মদ হোসেন প্রমুখ।