ঢাকার বাইরে ২৩ জেলায় ডেঙ্গু রোগী শনাক্ত

প্রকাশিত: 6:38 AM, July 29, 2019

ঢাকার বাইরে ২৩টি জেলায় ৬১১ জন ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়েছে। তাঁদের মধ্যে ২৮২ জন এখনো হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। স্বাস্থ্য অধিদপ্তর

গতকাল রোববার এসব তথ্য জানিয়েছে। আক্রান্ত ব্যক্তিদের বেশির ভাগ ঢাকা থেকে ওই সব এলাকায় গিয়েছিলেন।চট্টগ্রাম বিভাগে ১৭৯ জন ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়েছে। ঢাকা বিভাগের গাজীপুর, মুন্সিগঞ্জ, কিশোরগঞ্জ ও নারায়ণগঞ্জে ডেঙ্গু রোগী শনাক্ত হয়েছে। এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি ৭৩ জন শনাক্ত হয়েছে গাজীপুরে।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তথ্য অনুযায়ী, বগুড়ায় ৬০ জন ডেঙ্গু আক্রান্ত ব্যক্তি শনাক্ত হয়েছে। বগুড়ার বেসরকারি দুটি রোগনির্ণয় কেন্দ্রে চলতি জুলাই মাসে ১০৮ জন ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়েছে। শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে গতকাল চিকিৎসাধীন ছিলেন ৩৬ জন। শহরের একটি বেসরকারি ক্লিনিকে চিকিৎসাধীন রয়েছেন আরও চারজন।

নারায়ণগঞ্জে চারটি বেসরকারি ডায়াগনস্টিক সেন্টারে গত সাত দিনে ডেঙ্গুর পরীক্ষা করিয়েছেন প্রায় ৭০০ রোগী। এর মধ্যে ৯৮ জনকে ডেঙ্গু রোগী হিসেবে শনাক্ত করা হয়েছে। জেলা সিভিল সার্জনের কার্যালয়ের তথ্যমতে, গত এক মাসে ৩০০ শয্যা হাসপাতাল ও সদর জেনারেল হাসপাতালে ডেঙ্গু আক্রান্ত ২৫ জন চিকিৎসা নিয়েছেন।

কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক মোসা. নূরুন নাহার বলেন, সরকারিভাবে এখনো ডেঙ্গু শনাক্তের কোনো কিট বা ডিভাইস হাসপাতালে নেই। বেসরকারিভাবেই ডেঙ্গু শনাক্ত করা হচ্ছে। এই হাসপাতালে তিন সপ্তাহে মোট ৩২ জন ডেঙ্গু শনাক্ত রোগী ভর্তি হয়েছিলেন। চিকিৎসা শেষে চলে গেছেন বেশ কয়েকজন। বর্তমানে এই হাসপাতালে ১৪ জন ডেঙ্গু রোগী চিকিৎসা নিচ্ছেন।

মৌলভীবাজারে নয়জন ডেঙ্গু রোগী শনাক্ত করা হয়েছে। তাঁদের মধ্যে পাঁচজন সরকারি হাসপাতাল ও বেসরকারি ক্লিনিকে ভর্তি আছেন। চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন তিনজনকে ডেঙ্গু রোগী হিসেবে শনাক্ত করা হয়েছে।

নীলফামারীর আধুনিক সদর হাসপাতালে দুজন ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগী চিকিৎসা নিচ্ছেন। তাঁরা দুজনই ঢাকা থেকে এসেছেন। আক্রান্ত ব্যক্তিদের একজন পরিতোষ চন্দ্র রায় বলেন, ঢাকার একটি মেসে থেকে চাকরির চেষ্টা করছিলেন। ২৪ জুলাই তিনি ঢাকা থেকে বাড়িতে আসেন। গতকাল সকালে তাঁর জ্বর আসে। এরপর চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী রক্ত পরীক্ষা করলে তাঁর ডেঙ্গু জ্বর ধরা পড়ে।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর হাসপাতালে ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত পাঁচজন চিকিৎসা নিচ্ছেন। ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে লালমনিরহাট সদর হাসপাতালে দুজন রোগী ভর্তি হয়েছেন। তাঁরা ঢাকায় পোশাক কারখানায় চাকরি করতেন। গতকাল লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতালে দুজন ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগী ভর্তি হয়েছেন। এ নিয়ে গত এক সপ্তাহে ১০ জন ডেঙ্গু রোগী শনাক্ত হয় এই হাসপাতালে।

Share Button