ঝালকাঠি থেকে গরু চোর চক্রের সর্দার আটক : গরু উদ্ধার

প্রকাশিত: ১০:৩৭ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ২১, ২০২০

স্টাফ রিপোর্টার ॥ বরিশাল থেকে চুরি হওয়া দুটি গরু ঝালকাঠির রাজাপুর থেকে উদ্ধার করেছে বরিশাল মহানগরীর এয়ারপোর্ট থানা পুলিশ। এসময় সেখান থেকে আটক করা হয়েছে আন্তঃজেলা চোর চক্রের সর্দার নূর আলম (৪৫) কে। আটক নূর আলম রাজাপুরের কৈবর্তখালী গ্রামের মৃত ছমেদ হাওলাদারের ছেলে।
বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশের উত্তর বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার মো. খাইরুল আলম এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, ‘চলতি বছরের গত ১৯ জুন গভীর রাতে এয়ারপোর্ট থানাধীন সদর উপজেলার উত্তর কড়াপুর এলাকার বাসিন্দা জাকির আহমেদ শাকিলের বাড়ি থেকে চারটি গরু চুরি হয়। এই ঘটনায় থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়।

ওই মামলার সূত্র ধরে, ‘তদন্ত কর্মকর্তা এয়ারপোর্ট থানার এসআই দিপায়ন বড়াল ও এএসআই রায়হানুর রহমান তথ্য প্রযুক্তির সহায়তায় গত ২২ জুলাই ঝালকাঠির কাঠালিয়া থেকে পাঁচটি চোরাই গরু উদ্ধার এবং চোর চক্রের তিন সদস্য কবির হাওলাদার, রফিক ও ছোট রেজাউলকে আটক করেন।

পরবর্তীতে আটককৃত ওই তিন চোরের দেয়া তথ্য অনুযায়ী ২০ অক্টোবর রাতে এসআই দিপায়ন বড়াল ও এএসআই মহিউদ্দিন সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে ঝালকাঠির রাজাপুরে অভিযান পরিচালনা করেন। এসময় সেখান থেকে চোর চক্রের সর্দার নূর আলমকে আটক করা হয়।

তিনি আরও জানান, ‘আটককৃত চোর নূর আলম প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে গরু চুরির কথা স্বীকার করেছেন। পাশাপাশি তার দেয়া তথ্য অনুুযায়ী কাউনিয়া থানাধীন চরবাড়িয়া ইউনিয়নের লামছড়ি এলাকার আবুল হোসেনের কাছ থেকে দুটি চোরাই গরু উদ্ধার করা হয়। ওই গরু দুটি প্রায় দেড় মাস পূর্বে রাজাপুরের মঠবাড়ি ইউনিয়নের বাশতলা গ্রামের জনৈক কামাল খানের বাড়ি থেকে চুরি করে ৮৫ হাজার টাকা দাম ধরে এক বছরের জন্য আবুল হোসেনের কাছে লালন-পালন (বর্গা) দিয়েছেন।

শুধু তাই নয়, চোর সর্দার নূর আলম বরিশাল, পটুয়াখালী, ঝালকাঠি, পিরোজপুরসহ বিভিন্ন অঞ্চল থেকে গরু চুরি করে বিক্রি করে আসছেন। তার নেতৃত্বে আন্তঃজেলা গরু চোর চক্র গড়ে উঠেছে বলে স্বীকার করেছেন। পরে আটককৃত চোরের সর্দার নূর আলমকে গরু চুরি মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।

Sharing is caring!