জেলাজুড়ে অভিযান: মাস্ক না পরায় আরও ৫২ জনকে জরিমানা

প্রকাশিত: ৬:০৬ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ২৬, ২০২০

শফিক মুন্সি ॥ বরিশাল জেলায় করোনা সংক্রমণের দ্বিতীয় ঢেউ প্রতিরোধে জেলা প্রশাসনের অভিযান অব্যাহত রয়েছে। বুধবারও ‘নো মাস্ক, নো সার্ভিস’ প্রচারনা ও স্বাস্থ্যবিধি প্রতিপালনে মহানগরীসহ জেলা জুড়ে ৮টি মোবাইল কোর্ট অভিযানে ৫২ ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানকে ২২ হাজার ৯শত টাকা জরিমানা করা হয়েছে। এর মধ্যে গতকাল সকাল ১১ টা থেকে দুপুর ১ টা পর্যন্ত নগরীর সদর রোড এলাকায় নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নিরুপম মজুমদার এর নেতৃত্বে মোবাইল কোর্ট অভিযান পরিচালনা করা হয়। অভিযানকালে বাজারে আগত লোকদের মাস্ক ব্যবহারে উৎসাহিতকরণ ও সামাজিক দূরত্ব রেখে চলাফেরা এবং মাস্ক ব্যতিত কেউ যাতে কোন সেবা না পায় সেটি নিশ্চিত করার জন্য বিভিন্ন দোকান মালিক ও ব্যবসায়ীদের নির্দেশনা প্রদান করা হয়। পাশাপাশি জেলা প্রশাসন কর্তৃক প্রচারপত্র, ফ্যাস্টুন এবং ফ্রি মাস্ক বিতরন করা হয়।

অধিকন্তু মাস্ক না পড়ে ঘোরাফেরা করার মাধ্যমে স্বাস্থ্যবিধি লংঘন করায় ১২ জন পথচারীকে সাত হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। বরিশাল মহানগররে অপর একটি অভিযান পরিচালনা করেন জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রুমানা আফরোজ। স্বাস্থ্যবিধি না মানায় এ সময় ৫ ব্যক্তি ও তিন প্রতিষ্ঠানকে মোট চার হাজার সাতশো টাকা অর্থদন্ড দেওয়া হয়।এসময় বিভিন্ন দোকানে ‘নো মাস্ক, নো সার্ভিস’ ব্যানার বিতরণ করা হয়। অভিযানকালে আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় সহায়তা করেন বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশের একটি টিম।

বাবুগঞ্জ উপজেলার বাবুগঞ্জ বাজার এলাকায় করোনা ভাইরাস মহামারী চলাকালীন স্বাস্থ্য বিধি পরিপালন ও মাস্ক পরিধান নিশ্চিত করার লক্ষ্যে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ আমীনুল ইসলাম। মোবাইল কোর্ট পরিচালনাকালীন সময়ে বাজারে আগতদের মাস্ক পরিধান নিশ্চিত করা, স্বাস্থ্যবিধি পরিপালন করার লক্ষ্যে সচেতন করা হয় এবং যারা মাস্ক পরিধান করেনি তাদেরকে দন্ডবিধি, ১৮৬০ অনুযায়ী চার ব্যক্তিকে তিন হাজার পাঁচশো টাকা অর্থদন্ড করা হয়।

মোবাইল কোর্ট চলাকালীন অর্থদন্ড প্রাপ্ত দশজন ব্যক্তিদের উপজেলা প্রশাসনের তত্ত্বাবধানে তৈরিকৃত মাস্ক পরিয়ে দেয়া হয়। এ সময় করোনা ভাইরাস (কোভিড-১৯) মহামারী চলাকালীন বারবার সাবান দিয়ে হাত ধোয়া, নিয়মিত মাস্ক পরিধান করা ও সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে চলাফেরা করার জন্য সকলকে অনুরোধ করা হয়।
মোবাইল কোর্টকে আইনানুগ সহযোগিতা করে বাবুগঞ্জ থানার এস. আই ফজলুল হক সহ পুলিশ ফোর্স। এ সময় স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।অন্যদিকে বাবুগঞ্জে অন্য একটি অভিযানে মাস্ক না পরার অপরাধে চারজন ব্যক্তিকে দুই হাজার টাকা জরিমানা করেন নির্বাহী ম্যজিস্ট্রেট নুসরাত জাহান খান।

হিজলায় স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা এবং মাস্ক পরিধানে উৎসাহিতকরণের লক্ষ্যে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বকুল চন্দ্র কবিরাজ এর নেতৃত্ব মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা হয়। উক্ত অভিযানে ১৩ জনকে দুই হাজার ছয়শো টাকা অর্থ দন্ড প্রদান করা হয়।

বরিশাল সদরের তালতলি মার্কেট এলাকায় বুধবার বিকেলে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মুনিবুর রহমানের নেতৃত্বে একটি অভিযান পরিচালিত হয়। এসময় মাস্ক না পরার অপরাধে ছয়জন ব্যক্তিকে এক হাজার দুইশ টাকা জরিমানা করা হয়।

এ ব্যাপারে জেলা প্রশাসক ও জেলা ম্যাজিস্ট্রেট এস এম অজিয়র রহমান জানান, করোনা সংক্রমনের দ্বিতীয় ঢেউ রুখতে সব ধরণের প্রস্তুতি রয়েছে জেলা প্রশাসনের। সাধারণ মানুষের সচেতনতাই আসন্ন বিপর্যয় থেকে সকলকে রক্ষা করতে পারে। সচেতনা বৃদ্ধির লক্ষ্যে ভ্রাম্যমান আদালতের এ ধরণের অভিযান ভবিষ্যতেও অব্যাহত থাকবে।