জাহাজ-ড্রেজারের মুখোমুখি সংঘর্ষে পা হারাতে বসেছেন চরফ্যাশনের মহিউদ্দিন

প্রকাশিত: ৮:৩৭ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২৫, ২০২০

এম,নোমান চৌধরী,চরফ্যাশন প্রতিনিধি ::
জাহাজ ও ড্রেজারের মুখোমুখি সংঘর্ষে পা হারাতে বসেছেন চরফ্যাশনের মহিউদ্দিন। ঢাকার নারায়নগঞ্জের ডেমরায় একটি বালির জাহাজে শ্রমিক হিসেবে চাকরি নেন মোঃ মহিউদ্দিন নামের এই যুবক। ১১ সেপ্টেম্বর বালির জাহাজ-ড্রেজারের সংঘর্ষে বাম পা ভেঙে গুরুতর আহত হন মহিউদ্দিন।

টাঙ্গাইল থেকে সিরাজগঞ্জে যাওয়ার পথে এ ঘটনাটি ঘটে। মহিউদ্দিন চরফ্যাসন উপজেলার দুলারহাট আহাম্মদপুর ইউনিয়ন ৫নং ওয়ার্ডের দরিদ্র মোঃ হাসান রাড়ীর ছেলে। পা ভেঙে যাওয়ায় অসহায় হয়ে পড়েছে তার পরিবার। টাকার অভাবে উন্নত চিকিৎসা না করাতে পেরে পা হারাতে চলেছেন মহিউদ্দিন। ঘটনার দুই সপ্তাহ পার হয়ে গেলেও জাহাজ মালিক সাকিব এখনো পর্যন্ত খোঁজ নেননি বলে অভিযোগ করেন ভুক্তভোগী মহিউদ্দিন।

ভুক্তভোগী অভিযোগ করে জানান, দু মাস পূর্বে ঢাকার কেরানীগঞ্জ ডেমরায় ‘‘তৌহিদ তাহাসিন’’ নামের একটি বালির জাহাজে কাজ শুরু করেন। জাহাজটির মালিক মোঃ সাকিব। ১১ সেপ্টেম্বর বালির জাহাজটি বালি খালি করে টাঙ্গাইল থেকে সিরাজগঞ্জে যাওয়ার পথে একটি ড্রেজার মেশিনের সাথে জাহাজটির সামনের অংশটি ধাক্কা খায়। মহিউদ্দিন জাহাজটির সামনে থাকায় ড্রেজারের সাথে ধাক্কা খেয়ে বাম পা ভেঙে পানিতে পড়ে যান।

এসময় ড্রেজারের ম্যানেজার মহিউদ্দিনকে পানি থেকে উঠিয়ে হাসপাতালে ভর্তি করেন। সেখান থেকে প্রনাথমিক চিকিৎসা নিয়ে জাহাজ চালক তাকে ঢাকা থেকে লঞ্চ যোগে চরফ্যাসন পাঠিয়ে দিয়ে মোবাইল ফোনটি বন্ধ করে রাখে। জাহাজটির মালিক সাকিব মহিউদ্দিনের চিকিৎসার খরচের জন্য কোন ধরনের যোগাযোগ করেননি বলে ভুক্তভোগী অভিযোগ করেন।

এ ব্যাপারে জাহাজের মালিক সাকিব বলেন, ঢাকা থেকে মহিউদ্দিনের দেশের বাড়ীতে লঞ্চ যোগে পাঠানো হয়। মহিউদ্দিনের পা ভাঙার পর চিকিৎসার জন্য ৩৫ হাজার টাকা খরচ করেছি।

দুলারহাট থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ মুরাদ হোসেন বলেন, এ ব্যাপারে থানায় কোন লিখিত অভিযোগ পাইনি। তবে অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হে

Sharing is caring!