জনশুমারিতে সঠিক তথ্য দেয়ার আহবান  পরিকল্পনা মন্ত্রীর

প্রকাশিত: ৮:৫৭ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ২১, ২০২১

উন্নয়নের মহা সড়কে এখন বাংলাদেশ-মেয়র সাদিক আবদুল্লাহ

মোঃ জিয়াউদ্দিন বাবু ॥ পরিকল্পনা মন্ত্রী এম এ মান্নান এমপি আসন্ন জনশুমারিতে সবাইকে সঠিক তথ্য দেওয়ার আহবান জানিয়েছেন। তিনি বলেন, দেশে প্রতি দশ বছর পর পর জনশুমারি হয়। এ বারের জনশুমারী পেপারলেস হওয়ায় আগের চেয়ে বেশী তথ্য সমৃদ্ধ হবে। এ জন্য চার লাখ কর্মী তথ্য সংগ্রহে কাজ করবেন। বৃহস্পতিবার বরিশাল সার্কিট হাউজে আয়োজিত জনশুমারি ও গৃহগণনা নিয়ে বিভাগীয় মতবনিময় সভায় তিনি এ কথা বলেন।

 

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বরিশালের বিভাগীয় কমিশনার ড. অমিতাভ সরকার। বক্তব্য রাখেন সিটি কর্পোরেশনের মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহ, মন্ত্রণালয়ের সচিব মুহাম্মদ ইয়ামিন চৌধুরী, জেলা প্রশাসক জসীম উদ্দীন হায়দার, পরিসংখ্যান ব্যুরোর মহাপরিচালক মোহাম্মদ তাজুল ইসলাম, কবির উদ্দিন আহমেদ, সাংবাদিক এস এম ইকবাল, মুরাদ আহমেদ প্রমুখ।

 

সিটি মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহ বলেন, সকলকে নিয়ে বরিশালের উন্নয়নের কাজ করতে চাই। পর্যায় ক্রমে বরিশালের সমস্যা গুলো দূর করা হবে। বরিশালে কোন চাঁদাবাজি ও টেন্ডারবাজি নাই। আগের চেয়ে বরিশালের মানুষ অনেক ভালো আছে। উন্নয়নের মহা সড়কে এখন বাংলাদেশ। মন্ত্রী আরো বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অর্থনৈতিক মুক্তি এনে দিয়েছেন। সবার ঘরে বিদ্যুতের ব্যবস্থা করছেন। দেশে শিক্ষার মান বেড়েছে। দেশ আজ উন্নয়নের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। পদ্মা সেতু চালু হলে দক্ষিণাঞ্চলের চেহারা পাল্টে যাবে। নিজের ভূমিতে আমরা পরবাসী ছিলাম, আজ তা নেই।

 

১৯৭৪ সালে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বাংলাদেশে প্রথম আদম শুমারী ও গৃহগণনা অনুষ্ঠানের উদ্যোগ গ্রহণ করেন। পরে ১৯৮১, ১৯৯১, ২০০১ এবং ২০১১ সালে যথাক্রমে দ্বিতীয়, তৃতীয়, চতুর্থ এবং পঞ্চম আদমশুমারি ও গৃহগণনা অনুষ্ঠিত হয়। ১০ বছর পর পর্যাবৃত্তি অনুসরণ পূর্বক দেশে পরবর্তী ষষ্ঠ জনশুমারী ও গৃহগণনা ২০২১ সালে অনুষ্ঠিত হবে। আগামী ২৫ থেকে ৩১ অক্টোবর (২০২১) দেশে ৬ষ্ঠ জনশুমারী অনুষ্ঠিত হবে। তিনি আরো বলেন, জনশুমারী ও গৃহগণনা ২০২১ কার্যক্রম ৪টি পর্যায়ে সম্পন্ন হবে। এর মধ্যে রয়েছে জোনাল অপারেশন পরিচালনা, শুমারির তথ্য সংগ্রহ, পিইসি জরিপ পরিচালনা ও আর্থ সামাজিক ও জনতান্ত্রিক জরিপ পরিচালনা।