চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলা : আদালতের তদন্তের নির্দেশ

প্রকাশিত: ৮:১০ অপরাহ্ণ, আগস্ট ২৫, ২০২০

স্টাফ রিপোর্টার ॥ চাকুরির প্রলোভন দেখিয়ে কাঠালিয়ার আমুয়ার ২২ বছরের যুবতীকে ধর্ষণের অভিযোগে কাঠালিয়া উপজেলা চেয়ারম্যানসহ ২ জনের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। বিচারক মামলাটি আমলে নিয়ে বরিশাল কোতয়ালী মডেল থানার ওসিকে তদন্ত শেষে আদালতে প্রতিবেদন জমা দেবার জন্য নির্দেশ দেন।

মঙ্গলবার বরিশালের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের জজ মোঃ আবু শামীম আজাদ ওই নির্দেশ দেন। মামলার আসামীরা হচ্ছেন কাঠালিয়া উপজেলার চেয়ারম্যান মৃত ফজলুল হকের ছেলে মোঃ এমাদাদুল হক মনির (৩৭) ও আলম সিকদারের ছেলে মোঃ মিঠু সিকদার।

বাদীনি মামলায় উল্লেখ করেন আসামীর বাড়ী বাদীনির বাড়ী পাশাপাশি। চাকুরীর প্রলোভন দেখিয়ে কু প্রস্তাব দিয়ে ২০১৭ সনের এপ্রিল থেকে ২০২০ সনের ১ আগস্ট পর্যন্ত ধর্ষণ করেন। পরে ২নং আসামী মোঃ মিঠু সিকদারের সহযোগিতায় তার বাসভবনে এনে ধর্ষণ করেন। মনির কাঠালিয়া উপজেলা চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়ে বরিশালের বিভিন্ন স্থানে ও লঞ্চের কেবিনে ধর্ষণ করেন যুবতীকে।

চলতি বছরের ১ আগস্ট পুনরায় ধর্ষণ করেন। পরে বিয়ের কথা বললে আসামী অস্বীকার করায় বাদীনি মঙ্গলবার মামলা করলে বিচারক মামলাটি আমলে নিয়ে উপরোক্ত নির্দেশ দেন।

Sharing is caring!