চিত্রনায়ক রোশানের বাবার ওপর সন্ত্রাসী হামলা

প্রকাশিত: ১১:৪৩ পূর্বাহ্ণ, জানুয়ারি ১৫, ২০২১

বার্তা ডেস্ক :: চিত্রনায়ক জিয়াউল রোশানের বাবা নুরুল হক ভূঁইয়ার ওপর হামলার ঘটনা ঘটেছে। রোশান বুধবার রাতে ফেসবুকে লাইভে এসে ঘটনার বর্ণনা করে ন্যক্কারজনক এ হামলার বিচার চান। রোশানের বাবা নুরুল হক ভূঁইয়া আওয়ামী লীগ থেকে আখাউড়া পৌরসভা নির্বাচনে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী ছিলেন। বুধবার প্রতীক বরাদ্দ দেওয়া হয়। আখাউড়া পৌরসভা নির্বাচনে আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়ন পেয়েছেন বর্তমান মেয়র কাজল।

রোশান বৃহস্পতিবার রাতে ফেসবুক লাইভে বলেন, নৌকা প্রতীক পেয়ে কাজলের লোকজন আমার বাবার ওপর হামলা চালায়। বৃহস্পতিবার সকালে কালের কণ্ঠকে রোশান বলেন, ‘বর্তমান মেয়রের আশ্রয়ে থাকা দেবগ্রামের মধ্যপাড়ার কাদের মোল্লার ছেলে সোহাগ মোল্লা আমার বাবার ওপর ন্যক্কারজনকভাবে হামলা চালায়। আমার বাবা ছিলেন সড়ক বাজার মায়াবী সিনেমা হল প্রাঙ্গণ এলাকায়। ওরা নৌকা প্রতীক পেয়ে বিজয় মিছিল নিয়ে যাচ্ছিল। এ সময় ১১ মামলায় থাকা সোহাগ মোল্লার নেতৃত্বে আমার বাবার ওপর হামলা চালানো হয়। সোহাগ মোল্লা আমার বাবার দিকে জুতা ছুঁড়ে মারে। আমরাও তো সরকারি দলের লোক, এর কি বিচার পাব না?’

 

রোশান বলেন, ‘কাল থেকে আমার মোবাইল ফোনে শত মেসেজ এসেছে। যার সবগুলোই অভিযোগ। ওই সন্ত্রাসী বাহিনীর বিরুদ্ধে কেউ কিছু বলতে পারে না। আওয়ামী লীগের ত্যাগী নেতারা সরে গেছেন। এসব সন্ত্রাসীর হাতে আখাউড়ার অনেকেই জিম্মি। খোঁজ নিয়ে দেখেন, এরা কী করছে এলাকায়। সোহাগ মোল্লার সঙ্গে হামলায় অংশ নেয় তার ভাই রিপন মোল্লা, জুল আমিন, সাকিব, ইকবাল- আমি এই হামলার বিচার চাই।’

বর্তমান সময়ের ঢাকাই চলচ্চিত্রের এই চিত্রনায়ক বলেন, আমার বাবা আখাউড়া দক্ষিণ ইউনিয়ন পরিষদের তিনবারের চেয়ারম্যান ও পৌরসভার দুবারের মেয়র। ৩০ বছর ধরে ক্ষমতায়, অথচ বাবা আমাদের জন্য একতলা একটা পাকা বাড়ি করে দিতে পারেননি। আখাউড়ায় আমরা টিনের বাড়িতে থাকি। আমার বাবা এতটাই সৎ যে ক্ষমতায় থেকেও নিজের ও পরিবারের জন্য কিছু করতে পারেননি। নিজের কোনো ব্যবসা নেই। যার কারণে সঞ্চয়ও নেই। এমন বাবাকেই আমি শ্রদ্ধা করি, বাবার জন্য আমার গর্ব হয়।

 

চিত্রনায়ক রোশান মডেলিংয়ের মাধ্যমে কর্মজীবন শুরু করেন। ২০১৬ সালে রক্ত চলচ্চিত্রে অভিনয়ের মাধ্যমে চলচ্চিত্রজীবন শুরু করেন। রক্তে তার বিপরীতে অভিনয় করেন পরীমণি। চলচ্চিত্রটি ২০১৬ সালের ঈদুল আজহায় বাংলাদেশ এবং ভারতে মুক্তি পায়।

বাংলাদেশ-ভারত যৌথ প্রযোজনায় নির্মিত ধ্যাততেরিকি তাঁর দ্বিতীয় চলচ্চিত্র। শামিম আহমেদ রনি পরিচালিত ছবিটিতে আরো আছেন ফারিন খান, আরিফিন শুভ এবং নুসরাত ফারিয়া মাজহার। ২০১৭ সালে মুক্তি পায় তার অভিনীত ভারতীয় বাংলা চলচ্চিত্র ককপিট। অভিনেতা দেব প্রযোজিত এই ছবিতে তিনি দেবের সঙ্গে পার্শ্বভূমিকায় অভিনয় করেন।