চাকামইয়া-টিয়াখালী দোন নদীতে দখলদারের ছোবল, চলছে স্থাপনা তোলার কাজ

প্রকাশিত: ৫:২৩ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১৭, ২০২০

মেজবাহউদ্দিন মাননু, কলাপাড়া প্রতিনিধি  ::

চাকমইয়া-টিয়াখালী দোন নদীর পাড় দখল তাণ্ডব বেড়েই চলছে। কলাপাড়া পৌরশহরের বাসস্ট্যান্ড সংলগ্ন এলাকায় এখন শুরু হয়েছে এই দখল তাণ্ডব। নদী তীরসহ পানির প্রবাহ চলমান এলাকা দখল করে টিনসেড ঘর তোলা হয়েছে। নির্মাণ করা হয়েছে বহুতল একাধিক ভবন।

এনদীর ওপর বাংলাদেশ-ডেনমার্ক মৈত্রী সেতু নির্মিত হয়েছে। এরপর থেকে সেতুর দুই দিকে কলাপাড়া অংশে নদী তীরের এক কিমি এলাকা দখল করে শতাধিক সেমিপাকা টিনশেড স্থাপনা তোলা হয়েছে। এমনকি ম্যানগ্রোভ প্রজাতির প্রাচীন গাছ পর্যন্ত কেটে ফেলা হয়েছে। এখন নদীর তীর দখল চলছে ফ্রি-স্টাইলে। এ নদীর সঙ্গে রয়েছে আন্ধারমানিকের সংযোগ। দীর্ঘ নদীটির আমতলী অংশের অধিকাংশ ভরাট হয়ে গেছে।

এ ভরাট নদীর চর অনেক আগেই চাষযোগ্য কৃষি জমি দেখিয়ে বন্দোবস্ত দেয়ায় দখল প্রক্রিয়া আর ভরাট চলতে থাকে। এখন বাকি অংশের ৭/৮ কিলোমিটার যা রয়েছে তা দখলের উৎসব চলছে। জোয়াওে বুক সমান পানি থাকে সেসব এলাকাসহ কৃষিজমি দেখিয়ে বন্দোবস্ত দেয়া রয়েছে। নদীটির তীরে একাধিক ইটভাটা করা হয়েছে।

উপজেলা ভূমি প্রশাসনের তহশীলদাররা এসব রোধে কোন পদক্ষেপ নেয়না। কখনও উচ্ছেদ মামলা করছে না। বর্তমানে দোকানপাট-বাসাবাড়ি করা হচ্ছে এ নদীর তীর দখল করে। ওই এলাকায় পানি উন্নয়ন বোর্ডের অধিগ্রহণ করা জমি, খাস জমিসহ নদী তীর দখলের রীতিমতো তাণ্ডব চলছে। সহকারী কমিশনার (ভূমি) জগৎবন্ধু মন্ডল জানান, নদী দখলদার উচ্ছেদ প্রক্রিয়া চলমান রয়েছে।

Sharing is caring!