চলন্ত বাসে ডাকাতির চেষ্টা : ৭ ডাকাত র‌্যাবের হাতে আটক

প্রকাশিত: ১১:৪২ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১৩, ২০২১

স্টাফ রিপোর্টার ॥ চলন্ত বাসে ডাকাতির প্রস্তুতিকালে দেশীয় অস্ত্রসহ ডাকাত দলের সাত সদস্যকে আটক করেছেন র‌্যাব-৮ সদস্যরা। ১৩ ফেব্রুয়ারি রাতে রাজবাড়ী জেলার গোয়ালন্দঘাট থানাধীন পদ্মার মোড়ে র‌্যাবের ফরিদপুর ক্যাম্প এই অভিযান পরিচালনা করে।

আটক ডাকাত সদস্যরা হল- মানিকগঞ্জের ঘেউর থানাধীন কাউটিয়া এলাকার মৃত মুন্নাফের ছেলে মো. আব্দুল জলিল (৪০), একই জেলার হরিরামপুর থানাধীন কালই গ্রামের আহম্মদ আলীর ছেলে মো. লিটন (২০) ও কুকুর গাটি গ্রামের শেখ গফুরের ছেলে শেখ জুয়েল (২০), গাইবান্ধা জেলার পলাশবাড়ি থানাধীন কেশরগাড়ি গ্রামের মৃত মুকুল রহমানের ছেলে মো. পাপুল ইসলাম (২০) ও মো. আতিয়ার রহমানের ছেলে মো. মিলন মিয়া (২০), রংপুরের পীরগঞ্জ থানাধীন চতরা অনন্তপুর গ্রামের মো. আমিনুল ইসলামের ছেলে মো. শহিদুল ইসলাম (২০) ও একই গ্রামের বিপীন চন্দ্র মহন্ত’র ছেলে উজ্জল চন্দ্র মহন্ত (২৪)। তাদের কাছ থেকে ডাকাতির কাজে ব্যবহৃত একটি স্কুল ব্যাগের ভেতর থেকে দুটি চাপাতি, চারটি চাকু, ছয়টি মোবাইল ফোন এবং ১২টি সিমকার্ড উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় সংশ্লিষ্ট থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।

 

র‌্যাব জানিয়েছে, রাজবাড়ী জেলার গোয়ালন্দঘাট থানাধীন ঢাকা মহাসড়কে দীর্ঘদিন যাবত ডাকাত দলের সদস্যরা বিভিন্ন পরিবহনে ডাকাতি কার্যক্রম চালিয়ে আসছিল। এ বিষয়ে ফরিদপুর র‌্যাব ক্যাম্প গোয়েন্দা তৎপরতা বৃদ্ধি করে।
এর প্রেক্ষিতে ১৩ ফেব্রুয়ারি গভীর রাতে রাজবাড়ী জেলার গোয়ালন্দঘাট থানাধীন ঢাকা মহাসড়কের ওপর ট্রাভেলস নামক যাত্রীবাহী পরিবহনে ডাকাতির প্রস্তুতি নেয় একদল ডাকাত।

 

গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে র‌্যাবের ফরিদপুর টিম একই সময় ওই এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে। পাশাপাশি বাসটিতে তল্লাশী চালিয়ে ধারালো অস্ত্রসহ আটক করা হয় ডাকাত দলের সাত সদস্যকে। র‌্যাব জানিয়েছে, ‘আটককৃতরা পেশাদার ডাকাত। তাদের মধ্যে একজন প্রশিক্ষিত গাড়ী চালক রয়েছে। সে প্রথমে ড্রাইভারকে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে গাড়ি নিজে নিয়ন্ত্রণে নিয়ে নেয়।

এরপর অস্ত্রের মুখে গাড়ির যাত্রীদের নিকট থেকে মালামাল হাতিয়ে নেয়। গত দেড় মাসে দেশের বিভিন্ন স্থানে তারা পাঁচটি ডাকাতির ঘটনা ঘটিয়েছে বলে র‌্যাবের কাছে স্বীকার করেছে।