চরফ্যাশনে পাচারকালে চিংড়ির রেণু উদ্ধার : অবমুক্ত

প্রকাশিত: ১০:২৪ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১৮, ২০২১

চরফ্যাশন প্রতিনিধি ॥ চরফ্যাশনের চরমাদ্রাজ ইউনিয়নের নতুন স্লুইস এলাকা থেকে বৃহস্পতিবার রাত ৮ টার দিকে প্রায় ৩০ লক্ষ রেণু পোনা অবমুক্ত করেন উপজেলা নির্বাহি অফিসার রুহুল আমিন, সঙ্গীয় ফোর্স চরফ্যাশন থানার এসআই ইয়াছিন, মাসুদ, সাইফুল সহ একাধিক কনস্টেবল। ভোলার চরফ্যাশন থেকে প্রভাবশালীদের ছত্রছায়ায় দীর্ঘদিন যাবৎ চিংড়ির রেণু অবৈধ ভাবে আহরণ ও পাচার হয়ে আসছে। চিংড়ির রেণু পোনার পাচার সিন্ডিকেটের মূলহোতা লুৎফর দেওয়ান। একাধিক সমীক্ষায় উঠে এসেছে শুধুমাত্র লুৎফর দেওয়ান এর নেতৃত্বে মাসে প্রায় ৫ থেকে ৭ কোটি টাকার রেণু পাচার হয়। এর আগেও লুৎফর দেওয়ানের অবৈধ রেণু সংরক্ষণকারী আড়ত সিলগালা করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট।

 

তার পরেও ব্যবসা বন্ধ হয়নি বরং এ বিষয়ে সংবাদকর্মীরা সংবাদ সংগ্রহ করতে গেলে তাদেরকে লাঞ্ছিত ও হামলা করে লুৎফর দেওয়ানের বাহিনী। সেখানে মাইটিভির জেলা প্রতিনিধি সিরাজ মাসুদ চরফ্যাসনের জিহাদ আরো ২/৩জন সাংবাদিক কে পিটিয়ে আহত করেছে। এবং তাদের ক্যামরাও ছিনিয়ে নিয়েছে লুতফুর দেওয়ানের সন্ত্রাসী বাহিনী। এ বিষয়ে এখনো মামলা চলমান রয়েছে।

অবশেষে লুৎফর দেওয়ানের নেতৃত্বে ত্রিশ লক্ষ অবৈধ চিংড়ির রেণু পোনা পাচারকালে উপজেলা নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রুহুল আমিন ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে এসব চিংড়ি রেণু জব্দ করেন। পরবর্তীতে নদীতে অবমুক্ত করা হয়। এ বিষয়ে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন গণমাধ্যমকর্মী সহ সচেতন মহল।