চরফ্যাশনে গাছে-গাছে স্বর্ণালী আমের মুকুল

প্রকাশিত: ৭:৫৩ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ৩১, ২০২১

এম,নোমানচৌধুরী,চরফ্যাশন প্রতিনিধি ॥ ভোলা জেলার চরফ্যাশন উপজেলায় গাছে গাছে ছেয়েগেছে স্বর্ণালী আমের মুকুল। সুভাসিত মৌমৌ গন্ধে মুখরিত চরফ্যাশনের প্রত্যন্ত গ্রামাঞ্চলের আমবাগান গুলো। ছোট-বড় নানান জাতের বিষমুক্ত আমের মুকুল চোখ মেললেই দেখা মিলবে সদ্য ফোটা নয়নাভিরাম দৃশ্য। নানান জাতের আমের মুকুল গুটি দানা বাধতে শুরু করেছে। মাঘের শুরুতেই চরফ্যাশনে আগাম মুকুলের আমেজ। পৌষের শেষে আগাম মুকুলে গুটি দানা তাই চাষীদের মনে আশার প্রদীপ জ্বলে উঠেছে। ঠা-া বাতাসে যখন শরীরে কাঁপন ধরেছে, তখন বলার অপেক্ষায় থাকে না যে মাঘ মাস চলছে। প্রবাদ আছে মাঘের শীত বাঘের কাঁধে, আর শীতের দাপটে সেই প্রবাদ যেন হাড়ে হাড়ে টের পাচ্ছে চরফ্যাশনের মানুষ। আমের মুকুলের মিষ্টি ঘ্রাণে এরই মধ্যে, মৌ মৌ করতে শুরু করেছে চারদিক, বনফুল থেকে মৌমাছির দল গুনগুন করে ব্রিজ শুরু করেছে আমলো মুকুলে। মুকুলের সেই সুমিষ্ট সুবাস আনন্দে ভরে উঠেছে চাষির মনও। গাছের কচি কচি শাখা-প্রশাখায় ফোটা সোনালী ফুল গুলোর উপর সূর্যের আলো পরে চিকচিক করে উঠছে, পরিবেশ ও প্রতিকূল যেন আসছে আম উৎসবের জানান দিচ্ছে। আমের মুকুল ও কৃষকের স্বপ্ন তাই একই সুতোয় গাঁথা, আমের গাছে সদ্য মুকুল ফোটা দৃশ্য এরই মধ্যে ছেয়ে যেতে শুরু করেছে শহর ও প্রত্যন্ত গ্রামাঞ্চল। বাগান মালিকরা বাগান পরিচর্যায় ব্যস্ত।

 

বাগান মালিকরা জানান, এবার কুয়াশায় আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে বিষমুক্ত আম পর্যাপ্ত পরিমাণ পাওয়া যাবে। চরফ্যাশন উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা হাসনাইন আহম্মেদ বলেন, চরফ্যাশনের মানুষের ভিতরে ফলের চাষ এর আকর্ষণ বেড়েছে এবং বাসার ছাদেও ফল চাষ করা হয়। আমরা প্রত্যেক চাষিদের পরামর্শ দিয়ে থাকি। আমের আগাম মুকুল আসার আগেই প্রথমে স্প্রে ও গুটি দানা বাধার পর দ্বিতীয় বার স্প্রে করতে হয়, এই পরামর্শ আমাদের মাঠকর্মীরাও প্রতিটি ইউনিয়নে দিয়ে থাকেন। এবং প্রতিটি ইউনিয়নে আমাদের স্প্রে মেশিন আছে, মাঠকর্মীরা চাষিদের পরামর্শ ও সহযোগিতা দিয়ে থাকেন।