গৌরনদী পৌর নির্বাচনে নৌকার উঠান বৈঠকে মহা উন্নয়নের প্রতিশ্রুতি

প্রকাশিত: ৮:৫৫ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ২৭, ২০২১

গৌরনদী প্রতিনিধি ॥ আগামী ৩০ জানুয়ারী অনুষ্ঠিতব্য বরিশালের গৌরনদী পৌরসভার নির্বাচনে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীকের সমর্থনে বুধবার বিকেলে অনুষ্ঠিত সর্বশেষ উঠান বৈঠকে উন্নয়নের মহা প্রতিশ্রুতি দিলেন আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী ও বর্তমান মেয়র মোঃ হারিছুর রহমান।

 

মেয়র প্রার্থীর সমর্থনের ওই উঠান বৈঠকটি হাজার হাজার জনতার বাঁধভাঙা জোয়ারে বিশাল এক জনসমাবেশ রূপ নেয়। জনতার বিশাল সমুদ্রে দাঁড়িয়ে নৌকা প্রতীকের মেয়র প্রার্থী জনতার উদ্দেশ্যে স্বগর্বে ঘোষণা দেন, আপনারা যদি আমাকে পুনরায় মেয়র পদে নির্বাচিত করেন তবে আমি গৌরনদী পৌরসভাকে উপকূলীয় শহর উন্নয়ন প্রকল্পের আওতাভুক্ত করে দেড়শ কোটি টাকার উন্নয়ন কবর। এর আগে পরপর দুই বার আপনারা ভোট দিয়ে আমাকে মেয়র নির্বাচিত করেছিলেন। আমি আপনাদের কাছে করা সকল ওয়াদা একে একে পূরণ করার চেষ্টা করেছি। আবারো আমি নির্বাচিত হলে অতীতের ন্যায় আপনাদের জন্য গৌরনদী পৌরসভার দরজা সব সময় খোলা রাখব। আমার বিগত দিনের দায়িত্ব পালনকালের ন্যায় আগামী দিনেও কোন কাজের জন্য আপনাদেরকে গৌরনদী পৌরসভায় গিয়ে দীর্ঘক্ষণ অপেক্ষা করতে হবেনা। এতদিন আমি যে ভাবে আপনাদের সেবা দিয়ে এসেছিলাম আগামীতেও আমি আপনাদেরকে সে রকম সেবা দিয়ে যাবো। পুনরায় মেয়র নির্বাচিত হলে আমি আমার সর্বোচ্চ শ্রম ও মেধা ব্যয় করে পৌরবাসীর জন্য কল্যাণকর উন্নয়ন পরিকল্পনা গ্রহণ করব।

 

বুধবার বিকেল সাড়ে ৩টায় গৌরনদী পৌরসভার ৬নং ওয়ার্ডের আওতাধীন সরকারি গৌরনদী পাইলট মাধ্যমিক বিদ্যালয় বিদ্যালয় মাঠে গতকাল বিকেল সাড়ে ৩টায় অনুষ্ঠিত উঠান বৈঠকের শেষ দিকে সন্ধ্যার পূর্বে উপস্থিত পৌরবাসীর উদ্দেশ্যে নৌকার প্রার্থী হিসেবে বক্তৃতাকালে মেয়র প্রার্থী মোঃ হারিছুর রহমান এ সকল প্রতিশ্রুতি দেন।
একই সময় উপস্থিত জনতার উদ্দেশ্যে মেয়র প্রার্থী আরো প্রতিশ্রুতি সদিয়ে বলেন, পুনরায় ভোট দিয়ে আপনারা আমাকে যদি আমাকে মেয়রের দায়িত্বে বসান, তা হলে আমি কথা দিচ্ছি এ পৌরসভার উন্নয়নে ইতোপূর্বে নেয়া আমার পদক্ষেপগুলোকে পুরোপুরি বাস্তবায়ন করব। আর আমি যদি আমার অসমাপ্ত কাজগুলো বাস্তবায়নের সুযোগ পাই তবে আমার মহান নেতা আলহাজ্ব আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহর সহযোগিতা নিয়ে অসমাপ্ত কাজগুলো বাস্তবায়নের মাধ্যমে আমি আপনাদের জন্য একটি উন্নত ও সমৃদ্ধ গৌরনদী পৌরসভা উপহার দেব। প্

 

রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও দক্ষিণ বাংলার উন্নয়নের রূপকার, পার্বত্য শান্তিচুক্তির প্রনেতা সাবেক সফল চীফ হুইপ আলহাজ্ব আবুল হাসানাত আব্দুল্লাহ্ এবং গৌরনদী-আগৈলঝাড়ার আওয়ামী রাজনীতির আগামীর কর্ণধার বঙ্গবন্ধুর দৌহিত্র সেরনিয়াবাত আশিক আব্দুল্লাহ আমার প্রতি পূর্ণ বিশ্বাস ও আস্থা রেখে আমাকে তৃতীয় বারেরর মত গৌরনদী পৌরসভার মেয়র পদে নৌকা প্রতীকের মনোনয়ন দিয়ে গৌরবান্নীত করেছেন। এ জন্য আমি তাদের প্রতি ভিষন কৃতজ্ঞত। আপনারা দোয়া করবেন আমি যেন তাদের এ বিশ্বাস ও আস্থার স্থানটি আজীবন ধরে রাখতে পারি।

তাদের আস্থা ও বিশ্বাসের প্রতি মর্যাদা রেখে আমি যেন আগামীর দিনগুলো চলতে পারি সেই দোয়া করবেন। তাদের সম্মান এবং মর্যাদার হানি ঘটে, এ রকম কোন কাজ কোন অবস্থায়ই আমাকে যেন করতে না হয়। আমি যেন সেরনিয়াবাত পরিবারের একজন বিশ্বস্ত রাজনৈতিক কর্মী হিসেবে নিজেকে গড়ে তুলতে পারি। কঠিন কোন দুঃসময়েও যেন সবকিছুকে চ্যালেঞ্জ হিসেবে নিয়ে নিজের জীবন বাজি রেখে হলেও তাদের প্রতি বিশ্বস্ত থাকতে পারি, মহান আল্লাহ্ পাক যেন আমাকে সেই তৌফিক দেন।

 

গৌরনদী পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি মোঃ মনির হোসেন মিয়ার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উঠান বৈঠকে বক্তব্য রাখেন, গৌরনদী উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এইচ,এম জয়নাল আবেদীন, গৌরনদী উপজেলা চেয়ারম্যান সৈয়দা মনিরুন নাহার মেরী, আগৈলঝাড়া উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুর রইচ সেরনিয়াবাত, গৌরনদী উপজেলা আওয়ামীলীগের সিনিয়র নেতা আকবর হোসেন ফারুক, বানারীপাড়া উপজেলা চেয়ারম্যান মোঃ গোলাম ফারুক, উজিরপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও বরিশাল জেলা পরিষদের সদস্য এস,এম জামাল হোসেন, উজিরপুর উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল মজিদ সিকদার বাচ্চু, বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারন সম্পাদক মোঃ হাবিবুর রহমান হাবিব, মুলাদী উপজেলা চেয়ারম্যান তরিকুল ইসলাম মিঠু, উজিরপুর পৌর মেয়র মোঃ গিয়াস উদ্দিন বেপারী, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক যুগ্ন সাধারন সম্পাদক মোঃ মিজানুর রহমান, পৌর আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারন সম্পাদক ও সাবেক কাউন্সিলর মোঃ কবির হোসেন খান, উপজেলা যুবলীগের সভাপতি মোঃ আনিসুর রহমান, উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মোঃ জুবায়েরুল ইসলাম সান্টু ভূইয়া প্রমুখ।