গৌরনদীতে সেনা-পুলিশের যৌথ অভিযানে ৫টি ককটেল উদ্ধার


Deprecated: get_the_author_ID is deprecated since version 2.8.0! Use get_the_author_meta('ID') instead. in /home/ajkerbarta/public_html/wp-includes/functions.php on line 4861
প্রকাশিত: ৭:৩৮ অপরাহ্ণ, আগস্ট ২৯, ২০২০

গৌরনদী (বরিশাল) প্রতিনিধি ॥

শনিবার দুপুরে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী ও পুলিশের যৌথ অভিযানে বরিশালের গৌরনদী উপজেলার এক নারী ইউপি সদস্যের ভাসুরের বসত ঘরের পেছন থেকে মাটির হাঁড়িতে ভরে পুঁতে রাখা অবস্থায় ৫টি হাতবোমা (ককটেল) উদ্ধার করা হয়েছে।

গৌরনদী মডেল থানা সূত্রে জানাগেছে, থানা পুলিশ গোপন সূত্রে খবর পায় যে, উপজেলার খাঞ্জাপুর ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডের নারী ইউপি সদস্য হেলেনা বেগমের ভাসুর সোবহান মৃধার বসত ঘরের পেছনে শক্তিশালী বোমা পোঁতা রয়েছে। এর পর তারা ওই শক্তিশালী বোমা উদ্ধারে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর সহায়তা চায়।

বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ৭পদাতিক ডিভিশনের ক্যাপ্টেন সাতিল এর নেতৃত্বে ওই বাহিনীর ১১ সদস্যের একটি ইউনিট ও গৌরনদী সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আব্দুর রব হাওলাদারের নেতৃত্বে গৌরনদী মডেল থানা পুলিশের অপর একটি টিম সেখানে পৌঁছে শনিবার বেলা ১১টার দিকে শক্তিশালী বোমা উদ্ধার অভিযান শুরু করে। দীর্ঘ সময় ধরে মাটি খুঁড়ে দুপুর দেড়টার দিকে তারা সেখানে একটি মাটির হাঁড়িতে রাখা ৫টি হাতবোমা (ককটেল) এর সন্ধান পায়। পরে বোমাগুলো নিষ্ক্রিয় করা হয়।

উদ্ধার অভিযান শেষে দুপুর ২টার দিকে সেনাবাহিনী ও পুলিশ যৌথ সংবাদ ব্রিফিং করে উদ্ধার অভিযানের বিস্তারিত বর্ণনা করে।
গৌরনদী মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ গোলাম ছরোয়ার জানান, এ ঘটনায় কি ধরনের আইনগত ব্যবস্থা নেয়া যায় সে বিষয়ে পর্যালোচনা চলছে। ঘটনার সাথে জড়িত কাউকে এখন পর্যন্ত গ্রেফতার করা সম্ভব হয়নি।