গৃহহীন মানুষের একমাত্র ভরসার নাম শেখ হাসিনা- কলাপাড়ার ভূমিহীন লায়লা আক্তার

প্রকাশিত: ৭:৪৮ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ২৩, ২০২১

মেজবাহউদ্দিন মাননু, কলাপাড়া প্রতিনিধি ॥ ‘আমার বাবা-মা, ভাই-বোন, আত্মীয়-স্বজনেরা যা করেননি, তাই করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আমার অষ্টম শ্রেণি পড়–য়া মেয়েকে নিয়ে থাকার জন্য বাসযোগ্য নিরাপদ একটি সেমিপাকা ঘর দিয়ে তিনি আমাকে দুশ্চিন্তামুক্ত করেছেন। নিরাপত্তাহীনতায় ঝুপড়িঘরে রাতের ঘুম থাকতনা, দিয়েছেন রাতের নিরাপত্তাসহ আশ্রয়ের। দেশের অসহায়-দরিদ্র ভূমিহীন-গৃহহীন মানুষের একমাত্র আস্থা-ভরসার নাম শেখ হাসিনা। তার কাছে আমাদের মতো দরিদ্র-অসহায় মানুষ নিরাপত্তা পেয়েছে। মর্যাদা পেয়েছি। ঘর পেয়ে আত্মমর্যাদাও বেড়েছে। নিরাপদ আশ্রয়ের এমন ব্যবস্থা করেছেন প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা। আমি কখনও স্বপ্নেও ভাবিনি একটি সেমিপাকা ঘর পাবো!’ কথাগুলো বললেন, স্বামী পরিত্যক্তা লায়লা আক্তার খুশি।

 

পটুয়াখালীর কলাপাড়া উপজেলার নীলগঞ্জ ইউনিয়নের ইসলামপুর গ্রামের অসহায় লায়লা সদ্য পাওয়া ঘরের দলিলসহ কাগজপত্র বুঝে নেয়ার সময় এমনসব অভিব্যক্তি প্রকাশ করলেন। হতভাগী এ নারীর দু’টি চোখ আবেগে ছল ছল করছিল। এখন নিজেকে খুবই ভাগ্যবতী মনে করছেন। এক চিলতে খাস জমিতে একটি ঝুপড়ি ঘরে থাকতেন এই অসহায় মানুষটি। একমাত্র সন্তান মিলি আক্তার আদুরিকে জীর্ণ ঘওে রেখে দুশ্চিন্তায় অন্যের বাড়িতে কাজ করতে গিয়েও থাকতেন নিরাপত্তাহীন। ভাঙ্গা ঘরে মেয়েকে রেখে গৃহকর্মীর কাজে যেতে হতো, তখন এক অজানা উৎকন্ঠায় থাকতে হতো। এখন আর উৎকন্ঠা নেই। মুজিবর্ষে প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা কর্তৃক ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে জমি ও গৃহ প্রদানের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন শেষে ঘরের দলিলসহ কাগজপত্র বুঝে নেয়ার সময় লায়লা আক্তার এমন অভিব্যক্তি প্রকাশ করেন। ধানখালীর পাঁচজুনিয়া গ্রামের সাইফুন বিবি-হাবিল হাওলাদার দম্পতি এমন একটি ঘর পেলেন তা ভাবতেই পারছেন না। সারা দেশের মতো কলাপাড়ায় ৪৫০ গৃহহীন-ভূমিহীন পরিবারের মধ্যে ২৩৫ পরিবারকে শনিবার ঘরের দলিল হস্তান্তর করা হয়। প্রধানমন্ত্রীর উদ্বোধন পরবর্তী সভায় ইউএনও আবু হাসনাত মোহাম্মদ শহিদুল হক সভাপতিত্ব করেন। প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন সাবেক প্রতিমন্ত্রী কলাপাড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ মাহবুবুর রহমান।

 

অন্যান্যের মধ্যে উপজেলা চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা এসএম রাকিবুল আহসান, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা আবদুল মোতালেব তালুকদার, কলাপাড়া পৌরসভার মেয়র বিপুল চন্দ্র হাওলাদার, সহকারী কমিশনার (ভূমি) জগৎবন্ধু মন্ডল, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান শাহীনা পারভিন সীমা, প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মোঃ হুমায়ুন কবির, প্রেসক্লাব সভাপতি হুমায়ুন কবির, মহিপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি মনিরুল ইসলাম, ইউপি চেয়ারম্যান বৃন্দ বক্তব্য রাখেন। ঘরের দলিল বুঝিয়ে দেয়ার পাশাপাশি প্রত্যেক পরিবারকে একটি করে শীতবস্ত্র (কম্বল) প্রদান করা হয়। একটি বারান্দা, একটি বেডরুম ও একটি কিচেন এবং এ্যাটাস্ট বাথরুম-টয়লেটসহ ভূমিহীন-গৃহহীনরা এই ঘর এবং দুই শতক খাস জমি পেয়ে আনন্দে উদ্বেলিত। তারা সবাই জানান, আমরা মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর জন্য অন্তর থেকে দোয়া করছি।