ক্ষুদে চিত্র শিল্পী জারীফ জাতিসংঘের সর্বকনিষ্ঠ বিচারক নির্বাচিত

প্রকাশিত: ১২:১৭ পূর্বাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ৭, ২০২০

স্টাফ রিপোর্টার ॥ জাতিসংঘের ৭৫ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত “ঞঐঊ ঋটঞটজঊ ডঊ ডঅঘঞ” শীর্ষক আন্তর্জাতিক চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতার একজন বিচারক হিসেবে আমন্ত্রণ পেয়েছেন ১৩ বছর বয়সি আলোচিত ক্ষুদে চিত্র শিল্পী সাইয়্যেদ মুহাম্মদ জারীফ সালেহ। জেনেভাস্থ জাতিসংঘের ডিরেক্টর জেনারেল ‘টাটিয়ানা ভেলোভায়া’ গত ২৭ আগষ্ট তাকে এ সম্পর্কিত অভিনন্দন বার্তা পাঠিয়েছেন।

জাতিসংঘের এ প্রতিযোগিতায় বাংলাদেশী জারীফ ছাড়াও বিশ্বব্যাপী পাঁচটি মহাদেশের ৪৪টি দেশ থেকে ১৩-১৫ বছর বয়সি মার্কিন নাগরিক বা স্থায়ী বাসিন্দা অংশ নিয়েছে।
বাংলাদেশের ইতিহাসে এই প্রথম এবং এতো কম বয়সে জাতিসংঘের এমন একটি আয়োজনে বিচারক হিসেবে আমন্ত্রণ পাওয়া জারীফ বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশের উপ-পুলিশ কমিশনার (সদর দপ্তর) আবু রায়হান মুহাম্মদ সালেহ ও প্রকৌশলী নিশাত সিদ্দিক এর জ্যেষ্ঠ পুত্র। বর্তমানে সে কুমিল্লা ক্যাডেট কলেজের সপ্তম শ্রেণীতে অধ্যয়নরত আছেন।

পারিবারিক সূত্রে জানাগেছে, ‘ছোট থেকেই জারীফ তাঁর নিজের আঁকা চিত্র কৌশলে যথেষ্ঠ মেধার স্বাক্ষর রেখে আসছে। বাসায় আঁকা প্রতিটি কাজকে মনে মনে কল্পনায় ধরে নেয় এটাই চূড়ান্ত এবং জয়ী হতে হবে। সে বিশ্বাস করে, তার জীবনের সবচেয়ে বড় টার্নিং পয়েন্ট নিজেকে সারা বিশ্বের দরবারে পরিচিত হওয়া। সেখান থেকে সম্মানিত বিচারকমন্ডলী ও দর্শনার্থীরা তাকে চিনতে পারে এবং তাঁর চিত্রাঙ্কণ ভালোবাসতে শুরু করে।

ইতিপূর্বে সাইয়েদ মুহাম্মদ জারীফ সালেহ জাতিসংঘ এবং গ্যাবারন ফাউন্ডেশন কর্তৃক আয়োজিত আন্তর্জাতিক মানববাধিকার দিবস চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতায় সারা বিশ্বে প্রথম স্থান অর্জন করেন। ওই প্রতিযোগিতায় বিশ্বের ৭০টি দেশ থেকে ১৭ হাজার প্রতিযোগী অংশগ্রহন করেছিলো।
বর্তমানে তার আর্ট ওয়ার্কটি স্পেনের ভালাদোলিডে কুইনসোফিয়া যাদুঘর এর স্থায়ী সংগ্রহে রয়েছে।

চিত্রটি ২০১৮ সালের ১০ ডিসেম্বর প্রথম জেনেভা জাতিসংঘের পাউলস ডেস নেশনস এবং একই বছরের ১৯ ডিসেম্বর থেকে ২০১৯ সালের ২০ জানুয়ারি পর্যন্ত ব্রাসেলসের কানাল সেন্টার পম্পিডুতে প্রদর্শনী হয়।

এছাড়া তিনি ২০ তম কানাগাওয়া, জাপান দ্বিবার্ষিক চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগীতার প্রথম পুরস্কার বিজয়ী। এ প্রতিযোগিতায় ৯২টি দেশ থেকে মোট ২৭ হাজার ৫৯৯ প্রতিযোগী অংশগ্রহন করেন। ২০১৯ সালের জুলাই থেকে আগষ্ট পর্যন্ত জাপানের আর্থ প্লাজায় এবং একই বছরের মার্চ থেকে ২০২০ সালের মার্চ মাস পর্যন্ত কানগাওয়ার ১৩টি আলাদা জায়গায় প্রদর্শনী হয় তার ওই চিত্র কর্মটি।

জারীফ টেডেক্স এসভিনিট, ভারত আর্ট প্রতিযোগিতা ২০১৮ বিজয়ী। ভারতের সুরত টেডেক্স এসভিনিটি গেস্ট হাউসে একই বছরের সেপ্টেম্বর মাসে এ আর্ট প্রদর্শনী অনুষ্ঠিত হয়। এছাড়া জাতীয় শিশু দিবসে আরটিভি আর্ট প্রতিযোগিতায় বিজয়ী জারীফ। তিনি ওই প্রতিযোগিতার প্রশংসাপত্র গ্রহণ করেন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী মো. মোজাম্মেল হক এর হাত থেকে।

জারীফ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা অনুষদ কর্তৃক আয়োজিত আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস আর্ট প্রতিযোগিতা ২০২০ বিজয়ী। একই বছরের ২১ ফেব্রুয়ারি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের জগন্নাথ হল ও প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ে উক্ত চিত্র প্রদর্শনী অনুষ্ঠিত হয়েছে।

এছাড়া ২০২০ সালে শান্ত মরিয়াম ইউনিভার্সিটি অব ক্রিয়েটিভ টেকনোলজির প্রতিষ্ঠা দিবস উপলক্ষে আর্ট প্রতিযোগিতায় প্রথম হন। এসময় তিনি শান্ত মরিয়াম ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান মো. ইমামুল কবির শান্ত, মুক্তিযোদ্ধা মুজিবুর রহমান দিলু এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা অনুষদের অধ্যাপক মোস্তাফিজুল হক এর হাত থেকে পুরস্কার গ্রহণ করেন।

এছাড়াও জারীফ বিভিন্ন সময়ে লুফে নিয়েছে সর্বাধিক জাতীয় ও আন্তর্জাতিক সম্মাননা। শিশু জারীফ ছোট থেকেই অনেক মেধাবী। তাঁর নিপুঁণ চিত্রকলায় দেশ বিদেশে রয়েছে ব্যাপক সুনাম ও সাফল্য। এমনকি পৃথিবীর আনাচে-কানাচে জারীফের রয়েছে অগণিত ভক্ত।

তারই ধারাবাহিকতায় জাতিসংঘের ৭৫ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত “ঞঐঊ ঋটঞটজঊ ডঊ ডঅঘঞ” শীর্ষক আন্তর্জাতিক চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতায় সর্বকনিষ্ঠ বিচারক (জুরি) নির্বাচিত হয়েছেন সাইয়েদ মুহাম্মদ জারীফ সালেহ।

Sharing is caring!