ক্ষমতা মানুষের কল্যাণে সদ্ব্যবহার করা উচিত …………আনোয়ার হোসেন মঞ্জু

প্রকাশিত: ৯:০৯ পূর্বাহ্ণ, জুলাই ১৮, ২০২০

রবিউল হাসান রবিন, কাউখালী সংবাদদাতা ॥ জাতীয় পার্টি-জেপি’র চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন মঞ্জু এমপি বলেছেন, যে পর্যন্ত আমাদের উপর আল্লাহ রহমত থাকবে এবং আমরা এক থাকব ততদিন এলাকাবাসী উন্নয়ন সুবিধা ভোগ করবেন। মহান সৃষ্টিকর্তা আমাদেরকে অনেক সুযোগ দিয়েছেন। এই সুযোগ তথা প্রাপ্ত ক্ষমতা মানুষের কল্যাণে সদ্ব্যবহার করা উচিত। আজ থেকে ২৫ বছর আগে আমি কাউখালীর এই সন্ধ্যা নদীতে একটি ফেরী চালু করেছিলাম। যা পরবর্তী বিএনপি সরকার আমলে অন্যত্র সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়। আল্লাহর রহমতে আজ আবার আমার হাতেই সেই ফেরী পুনঃস্থাপিত হয়েছে।

তিনি গতকাল শুক্রবার বিকালে পিরোজপুর জেলার কাউখালী উপজেলায় কাউখালী বন্দর থেকে সোনাকুর-আমরাজুড়ি খেয়াঘাট সংযোগকারী সন্ধ্যানদীর উপর পুনঃস্থাপিত ফেরী সার্ভিসের উদ্বোধন কালে এ কথা বলেন।

আনোয়ার হোসেন মঞ্জু বলেন, ২৫ বছর আগে আমার হাত ধরেই এখানে ফেরী এসেছিলো। বিগত ৩৬ বছরে কাউখালী-ভা-ারিয়াসহ দক্ষিণাঞ্চলের বিভিন্ন ক্ষেত্রে যে উন্নয়ন সাধনের সুযোগ আমরা পেয়েছি তা ঈমানের সাথে সদ্ব্যবহার করেছি। প্রাপ্ত সুযোগের সদ্ব্যবহারের মধ্যদিয়ে মানুষের কাছ থেকে সম্মান, আস্থা তথা শ্রদ্ধা অর্জন করতে হয়। আমরা সব সময় মনেকরি কম কথা ভালো, কাজ বেশী করা উচিত। যেখানে বিভেদ থাকে, ঝগড়া থাকে সেখানে কাজ কম হয়। যেখানে বিভেদ নাই ঝগড়া নাই সেখানে বেশী কাজ করা সুযোগ থাকে। এই এলাকায় অনেক রাস্তা-ঘাট, পুল-ব্রীজ-কালভার্টসহ বিভিন্ন অবকাঠামোগত উন্নয়নে আমাদের ভূমিকা রাখার সুযোগ হয়েছে। ১৯৯৮ সালে নবনির্মিত পিরোজপুরের বলেশ^র সেতু উদ্বোধনের পর ঝালকাঠির গাবখান সেতুর ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন অনুষ্ঠানে বসে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কঁচানদীতে বেকুটিয়া সেতু নির্মাণের সিদ্ধান্ত দিয়েছিলেন। তৎকালীন মন্ত্রী আমির হোসেন আমু ও যোগাযোগ মন্ত্রী হিসাবে আমাকে এ বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী প্রয়োজনীয় উদ্যোগ নেয়ার নির্দেশ দিয়েছিলেন।

পরবর্তীকালে এই সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নে বিলম্বে হলেও এখন বেকুটিয়া সেতুর নির্মাণ কাজ সম্পন্ন হচ্ছে উন্নয়ন ক্ষেত্রে প্রধানমন্ত্রী ও আমাদের ধারাবাহিক প্রয়াসের কারণে। আমি যখন ১৯৮৪ সালে প্রথম কাউখালীতে আসি তখন অনেক এলাকাবাসীর সাথে পরিচয় ঘটে। এদের মধ্যে অনেকেই সরকারের বড় বড় কর্মকর্তাসহ গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ ছিলেন। কিন্তু দুঃখের বিষয় হচ্ছে ১৯৯৬ সালে কাউখালীর এই ফেরীটি স্থাপনের পর তা যখন পরবর্তীকালে বিএনপি আমলে এখান থেকে সরিয়ে নেয়া হলো তার প্রতিবাদ কেউই করেননি। আমার সৌভাগ্য আমি ৩৬ বছর এলাকায় এমপি আছি, ১৮ বছর মন্ত্রীত্ব করেছি, আল্লাহর কি শান আজ ২০ বছর পর সেই ফেরী সার্ভিস আবার আমাদের হাতে ফিরে এসেছে। এই অর্জন সম্ভব হয়েছে আমার প্রতি এলাকাবাসীর একতাবদ্ধ সমর্থনের কারণে। যতদিন ভাণ্ডারিয়া, কাউখালী ও ইন্দুরকানীর মানুষ ঐক্যবদ্ধ থাকবে ততদিন আল্লাহর রহমতে এলাকাবাসীর ভাগ্য উন্নয়ন সাধিত হবেই। আনোয়ার হোসেন মঞ্জু এমপি এ সময় পুনঃস্থাপিত ফেরী সার্ভিসের উদ্বোধন শেষে দোয়া ও মোনাজাতে অংশ নেন।
এ সময় কাউখালী স্টিমার অফিস চত্বরে অনুষ্ঠিত উদ্বোধনী সভায় পিরোজপুর সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মাসুদ মাহমুদ সুমনের সভাপতিত্বে আরও বক্তব্য রাখেন কাউখালীর উপজেলা চেয়ারম্যান আবু সাঈদ মিয়া মনু, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মৃদুল আহমেদ সুমন ও উপজেলা জেপি’র সাধারণ সম্পাদক মো. শাহ আলম নসু।

এরপর তিনি উপজেলা পরিষদ অডিটরিয়ামে দুঃস্থ ও অসহায়দের মাঝে চেক ও নগদ অর্থ এবং ঢেউটিন বিতরণ করেন। সংসদ সদস্য এর অনুকূলে ধর্ম মন্ত্রণালয় হতে প্রাপ্ত ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানে বরাদ্দকৃত অর্থের চেক, সংসদ সদস্যের ঐচ্ছিক তহবিলের নগদ অর্থের চেক এবং দুর্যোগ ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের ঢেউটিন ও নগদ অর্থের চেক এসময় উপকারভোগীদের মধ্যে বিতরণ করা হয়।

আনোয়ার হোসেন মঞ্জু এমপি গতকাল বিকালে কাউখালী উপজেলার শিয়ালকাঠি ইউনিয়নের দারুস সুন্নাত জামেয়া-এ-ইসলামিয়া কামিল ডিগ্রী মাদ্রাসার চারতলা বিশিষ্ট ভবনের নির্মাণ কাজের শুভ উদ্বোধন করেন। মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মাওলানা মো. মোস্তাফিজুর রহমান এসময় দোয়া ও মোনাজাত পরিচালনা করেন।