কোন ষড়যন্ত্রই গণ মানুষের অধিকার কেড়ে নিতে পারবেনা-শেখ মুজিব

প্রকাশিত: ১১:১৭ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ৩০, ২০২০

তপন চক্রবর্তী :: ১৯৭০ সালের ৭ ডিসেম্বরের নির্বাচনে পাকিস্তানের শাসক গোষ্ঠীর সব হিসাবই পাল্টে দিল। জাতীয় পরিষদের মোট ৩০০ আসনের মধ্যে পূর্ব পাকিস্তানের জন্য নির্দিষ্ট ১৬২ আসনের মধ্যে আওয়ামীলীগ একাই ১৬০টি আসনে জয়লাভ করে সরকার গঠনের অবস্থায় চলে এল। নির্বাচনের এই ফলাফল পাক শাসক জান্তা বা পাকিস্তানের অর্থনীতির মালিক ২২টি পরিবার যা কেউই আশা করেনি। লেখা বই (বিট্রেয়াল অব ইস্ট পাকিস্তান পৃ: ৩৯) এ বলা হয় যে তারা আশা করেছিলেন কোন দলই সংখ্যাগরিষ্ঠতা পাবেনা।

কিন্তু সব ধারণা বদলে দিয়ে আওয়ামীলীগ সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেল, এখন কি হবে। পাক সামরিক জান্ত জুলফিকার আলী ভুট্টো যিনি পশ্চিম পাকিস্তানের ১৩৮ টি আসনের মধ্যে ৮১টি আসন পেয়েছিলেন। ২২ টি শিল্পপতি পরিবার সবাই ২৩ বছর পূর্ব পাকিস্তান এর অর্থনীতিকে শোষণ করার জন্য একাট্টা হলো।

এই অবস্থায় ১৯৭০ সনের ডিসেম্বরের শেষে পাকিস্তানের প্রেসিডেন্ট জেনারেল ইয়াহিয়া স্বল্প সময়ের জন্য পূর্ব পাকিস্তানে এলেন। গভর্নর হাউজে এক ভোজের পর তিনি পূর্ব পাকিস্তানিদের তথা বাঙালীদের সম্পর্কে মন্তব্য করলেন এই কালো জারজরা আমাদের শাসন করবে আমরা তা কোন দিনই হতে দেব না। প্রকাশ্যে এই মন্তব্য শেখ মুজিবের কানে চলে এল। তিনি রাষ্ট্রনায়ক এবং একই সাথে একজন রুচিশীল ব্যক্তি। ইয়াহিয়া বা অন্যান্যদের থেকে সম্পূর্ণ আলাদা রুচি আর মানসিকতার লোক। তিনি বললেন কোন ষড়যন্ত্রই গণমানুষের অধিকার কেড়ে নিতে পারবেনা। এর পরের ইতিহাস সবার জানা।

ভাবতে অবাক লাগে ইয়াহিয়া খান সব বাঙালীদের সম্পর্কে যে কথা গুলো মন্তব্য করলেন, এ সময় যে বাঙালীরা তার সাথে ছিলেন তারাও এ মন্তব্য মেনে নিল- এরা কি এদেশের মানুষ!