কুয়াকাটায় কোয়ারেন্টিনে থাকা শ্রমিকের ১৭ জনের করোনা শনাক্ত নিয়ে ধুম্রজাল

প্রকাশিত: ২:১৪ অপরাহ্ণ, জুলাই ১১, ২০২০

কলাপাড়া প্রতিনিধি ॥ পায়রা তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্রের নির্মাণ কাজে যোগদানের জন্য কুয়াকাটায় আবাসিক হোটেলে কোয়ারেন্টিনে থাকা ১৭ শ্রমিকের করোনায় শনাক্তের খবর নিয়ে কলাপাড়ায় ধুম্রজাল সৃষ্টি হয়েছে। চীনা কোম্পানি নর্থ ইস্ট পাওয়ার কোম্পানি (এনইপিসি) এ শ্রমিকদের কাজে যোগদানের জন্য বিভিন্ন জেলা থেকে নিয়ে আসে বলে একটি সূত্র জানিয়েছে। শ্রমিকরা সবাই হোটেলে অবস্থান করছিলেন। শনিবার সকাল ১০ টার পরে স্বাস্থ্য বিভাগ কলাপাড়ার আটটি হোটেলে অবস্থানরত ১৭ শ্রমিকের করোনা শনাক্তের খবর গণমাধ্যম কর্মীদের জানায়।

জানানো হয় মহিপুর থানার ওসি মো. মনিরুজ্জামানকে। পুলিশ তাৎক্ষণিক ৮টি হোটেলে থাকা ওই শ্রমিক ছাড়াও হোটেল ব্যবস্থাপনায় জড়িত সকলকে আইসোলশনে থাকার নির্দেশ দেয়। কিন্তু শনিবার দুপুরে কলাপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ চিন্ময় হাওলাদার ফের গণমাধ্যমকে জানান, আমরা ওই ১৭ শ্রমিক করোনা শনাক্তের মেইলটি পেয়েছি গাজীপুরের একটি হাসপাতালের। এটি করোনা টেস্টের জন্য সরকারি অনুমোদন আছে কি না তা নিশ্চিত হতে বিষয়টি পটুয়াখালীর সিভিল সার্জনকে অবগত করেছেন। তিনি বলেন, ওই শ্রমিকদের নমুনা সংগ্রহের অনুমতি কিংবা রিপোর্ট জেলা সিভিল সার্জনের অনুমতি নিয়ে করতে হবে।

মহিপুর থানার ওসি মো. মনিরুজ্জামান জানান, পায়রা তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্রে কাজে যোগদানের জন্য দেশের বিভিন্ন জেলা থেকে ৩১৫ শ্রমিক ২৭ জুন থেকে ২৯ জুন কুয়াকাটার বিভিন্ন আবাসিক হোটেলে কোয়ারেন্টিনে রয়েছেন। হোটেল মালিকরা তাকে এ তথ্য দিয়েছেন। বর্তমানে ওই ১৭ শ্রমিকের করোনা আক্রান্তের খবরটি নিশ্চিত হয়ে তাঁদের আইসোলেশন নিশ্চিত করা প্রয়োজন বলে মনে করছেন কুয়াকাটা হোটেল মোটেল ওনার্স অ্যাসোসিয়েশন’র সাধারণ সম্পাদক মোতালেব শরীফ।

কলাপাড়ার ইউএনও আবু হাসনাত মোহাম্মদ শহিদুল হক জানান, স্বাস্থ্য বিভাগ সিদ্ধান্ত দিলে সে অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে।