কারাদণ্ড হতে পারে শাকিব খানের

প্রকাশিত: ৬:৪১ অপরাহ্ণ, জুলাই ২, ২০২০

বার্তা ডেস্ক ॥ কপিরাইট আইন লঙ্ঘনের দায়ে শাস্তির মুখে পড়তে যাচ্ছেন চিত্রনায়ক ও প্রযোজক শাকিব খান। দিলরুবা খানের গাওয়া ‘পাগল মন’ গানের কিছু অংশ হুবহু শাকিব খান প্রযোজিত ছবি ‘পাসওয়ার্ড’ ছবিতে ব্যবহার করা এবং তা বাণিজ্যিকভাবে মুঠোফোনের ইন্টারনেট প্যাকেজে অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করায় শাস্তির মুখে পড়তে হতে পারে তাকে।

গানটির স্বত্ত্বাধিকারী হিসেবে গীতিকার প্রয়াত আহমেদ কায়সার, সুরকার আশরাফ উদাস ও কণ্ঠশিল্পী দিলরুবা খানকে ২০১৮ সালের ১১ অক্টোবর কপিরাইট সনদ দিয়েছে বাংলাদেশ কপিরাইট অফিস। কপিরাইট অফিসের রেজিস্ট্রার জাফর রাজা চৌধুরী গণমাধ্যমকে বলেন, শাকিব খান সনদপ্রাপ্ত স্বত্ত্বাধিকারীদের অনুমতি ছাড়া ‘পাগল মন’ গানের ‘পিক লাইন’ ও সুর তার ‘পাসওয়ার্ড’ চলচ্চিত্রে ব্যবহার করে থাকলে তা হবে কপিরাইট আইনের ৭১ ধারার লঙ্ঘন। আর অভিযোগ প্রমাণিত হলে কপিরাইট আইনের ৮২ ধারায় ছয় মাস থেকে দুই বছরের কারাদ- এবং ৫০ হাজার থেকে ৪ লাখ টাকা জরিমানার বিধান রয়েছে।

‘পাসওয়ার্ড’ চলচ্চিত্রের অন্যতম প্রযোজক শাকিব খান দাবি করেছেন, গানের রেকর্ডিংয়ের আগে শিল্পী দিলরুবা খানের কাছ থেকে ‘মৌখিকভাবে’ অনুমতি নেয়া হয়েছিল। তবে তা উড়িয়ে দিয়ে দিলরুবা খান বলেছেন, শাকিব খানকে তিনি কোনো অনুমতি দেননি। গানের সুরকার আশরাফ উদাসও একই কথা বলেছেন। কপিরাইট অফিস বলছে, কপিরাইট হিসেবে নিবন্ধিত কোনো গান ব্যবহারের জন্য স্বত্ত্বাধিকারীর স্বাক্ষরসহ লিখিত চুক্তি থাকতে হবে; মৌখিক অনুমতির কোনো আইনগত ভিত্তি নেই।

শাকিব গণমাধ্যমকে বলেন, ‘পাসওয়ার্ড’ ছবির শুটিংয়ের সময় ফোনে কথা হয় দিলরুবা খানের সঙ্গে। ছবিটির আরেকজন প্রযোজক ইকবাল, পরিচালক মালেক আফসারী এবং চিত্রনাট্যকার আবদুল্লাহ জহির বাবু উপস্থিত ছিলেন। তারা সাক্ষী আছেন, আমি দিলরুবা খানের কাছ থেকে ‘পাগল মন’ গান ফিউশনের জন্য অনুমতি নিয়েছি। তিনি খুশিও হয়েছিলেন। আমাকে দোয়া করেন। এত মাস পর এসে কেন অস্বীকার করছেন, কীইবা তার উদ্দেশ্য, কিছুই বুঝতে পারছি না! দেশের একজন জ্যেষ্ঠ শিল্পী হয়ে এখন এসে মিথ্যা বলে ব্ল্যাকমেইলের চেষ্টা করছেন।