করোনাভাইরাসে ইতালিতে দুজনের মৃত্যু

প্রকাশিত: ৫:০২ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ২২, ২০২০
A military personnel in protective gear walks across the Cecchignola quarantine center, south of Rome, on February 3, 2020 where Italian citizens have been placed in quarantine after being repatriated from the coronavirus hot-zone of Wuhan at the nearby military airport of Pratica di Mare. (Photo by Tiziana FABI / AFP)

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ইতালিতে দুজনের মৃত্যু হয়েছে। আজ শনিবার ৭৫ বছরের এক নারী মারা গেছেন। গতকাল শুক্রবার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান ৭৮ বছর বয়সী এক ব্যক্তির।

করোনাভাইরাসে আজ মারা যাওয়া নারী ইতালির লম্বার্ডির ছোট শহর কডোগনোর একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন। আর গতকাল দেশটির পাদুয়া শহরের একটি হাসপাতালে ওই ব্যক্তি মারা যান।

মৃতদের নাম-পরিচয় প্রকাশ করেনি হাসপাতাল দুটির কর্তৃপক্ষ। করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ইউরোপে দুজনের মারা যাওয়ার এটিই প্রথম ঘটনা।

ইতালির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের বরাত দিয়ে স্থানীয় সংবাদমাধ্যমগুলো এ খবর নিশ্চিত করেছে।

গতকাল ৭৮ বছরের ওই ব্যক্তি মারা যাওয়ার পর ইতালির স্বাস্থ্যমন্ত্রী রবার্তো স্পেরানজা জানান, পাদুয়া শহরে একটি হাসপাতালে যে ব্যক্তি করোনাভাইরাসে আক্রন্ত হয়ে মারা গেছেন, তিনি ১০ দিন ধরে চিকিৎসাধীনে ছিলেন।

ইতালিতে এখন পর্যন্ত ২৯ জন করোনারোগী শনাক্ত করা হয়েছে, যাদের বেশির ভাগ লোম্বার্দীয়া এলাকার বাসিন্দা। দেশটির ১০টি উপশহর সাময়িক বন্ধ ঘোষণা করেছে সরকার। ৫০ হাজার সাধারণ জনগণকে ঘরের ভেতরে অবস্থান নিতে বলা হয়েছে। সাময়িক বন্ধ করে দেওয়া উপশহরগুলোর স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়গুলো অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।

চীনে করোনাভাইরাস ছড়িয়ে যাওয়ার পর ইতালির বিমানবন্দর, রেল স্টেশন বিভিন্ন শহরে কঠোর নিরাপত্তার বব্যস্থা করে সরকার। এর মধ্যে দুজনের মৃত্যুতে দেশব্যাপী আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে।

দেশটির স্বাস্থ্য কর্মকর্তারা জানান, শতাধিক মানুষকে আলাদা করে রাখা হয়েছে। তাদের পরীক্ষা করে দেখা হচ্ছে।

করোনাভাইরাসের জন্য ঝুঁকিপূর্ণ অঞ্চলের অর্ধলক্ষাধিক মানুষকে ঘরে থাকার পরামর্শ দিয়েছে কর্তৃপক্ষ। এক সপ্তাহের জন্য যাবতীয় উৎসব পালন কিংবা গির্জা বা খেলাধুলায় অংশ নেওয়ার ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে।

Sharing is caring!