কঙ্গনার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিলো টুইটার

প্রকাশিত: ১১:২১ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ৫, ২০২১

বার্তা ডেস্ক :: বর্তমানে বলিউডের সবথেকে সাহসী অভিনেত্রী কঙ্গনা রনৌত। সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর পর থেকে যেনো আরও বেপরোয়া হয়ে উঠেছেন তিনি। বিতর্কিত মত প্রকাশ করে গেলো বছরজুড়েই ছিলেন সমালোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে। এবার টুইটারের কোপে পড়লেন কঙ্গনা। নিয়মকানুন লঙ্ঘন করায় এই অভিনেত্রীর কয়েকটি পোস্ট সরিয়ে ফেলেছে টুইটার কর্তৃপক্ষ। সেগুলো আর দেখা যাচ্ছে না।

এছাড়া কঙ্গনার টুইটার অ্যাকাউন্টে বার্তা দেওয়া হয়েছে। গত মাসে কঙ্গনার অ্যাকাউন্ট কিছু সময়ের জন্য সাসপেন্ডও করা হয়েছিল টুইটার কর্তৃপক্ষ।

 

টুইটারের তরফে এ নিয়ে একটি বিবৃতি জারি করে বলা হয়েছে, ‘যে টুইটগুলো এই সোশাল মিডিয়ার নিয়ম ভেঙেছে, সেগুলোর বিরুদ্ধে আমরা পদক্ষেপ করেছি। ২ ঘণ্টার টুইট মুছে ফেলা হয়েছে। ওই টুইটগুলো কৃষকদের প্রতিবাদ নিয়ে করা হয়েছিল।’

কঙ্গনার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিলো টুইটার

কৃষকদের সমর্থনে রিয়ান্নার টুইটারের প্রতিক্রিয়ায় কঙ্গনা যে উত্তপ্ত টুইট করেছিলেন, তারপর থেকেই শুরু হয় সমস্যা। কৃষকদের প্রতি সমর্থন জানিয়ে রিয়ান্না সম্প্রতি টুইট করেছিলেন।

 

টুইটে রিয়ান্না লিখেছিলেন, ‘আমরা এনিয়ে কেন কথা বলছি না?’ এই টুইটেরই উত্তর দেন কঙ্গনা। তিনি লেখেন, ‘কেউ এনিয়ে কথা বলছে না। কারণ ওরা কৃষক নয়, ওরা সন্ত্রাসবাদী। ওরা ভারতকে ভাগ করতে চাইছে। যাতে চীন আমাদের খণ্ডিত হয়ে যাওয়া দেশের উপর আধিপত্য বিস্তার করতে পারে ও চাইনিজ কলোনি স্থাপন করতে পারে, যেমনটা আমেরিকা করেছে। তুমি বোকা, চুপচাপ বসে পড়। আমরা তোমাদের মতো আমাদের দেশ বিক্রি করব না।’ শুধু তাই নয়। পরিবেশবিদ গ্রেটা থুনবার্গকে তিনি ‘ইঁদুর’ হিসেবে সম্বোধন করেন তার টুইটে।

 

ক্রিকেটার রোহিত শর্মার সঙ্গেও বাকযুদ্ধ করেন কঙ্গনা। ক্রিকেটারদের তিনি ওই টুইটে ‘ধোবি কা কুত্তা, না ঘর কা না ঘাট কা’ বলতেও দ্বিধা করেননি। এছাড়া পাঞ্জাবি ও বলিউড স্টার দিলজিৎ দোসাঞ্জকেও টুইটে ‘খালিস্তানী’ বলে অভিহিত করেন কঙ্গনা।