একবিংশ শতাব্দীর চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় দরকার টেকসই শিক্ষা- ববি উপাচার্য

প্রকাশিত: ৮:৪০ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ৫, ২০২০

ওবায়দুর রহমান, ববি প্রতিনিধি ॥

মানুষের জ্ঞান, দক্ষতা, দৃষ্টিভঙ্গি ও মূল্যবোধ সৃষ্টিই হল শিক্ষা। আর যে শিক্ষা বর্তমান প্রজন্মকে ভবিষ্যতে টিকে থাকার জন্য সহায়তা করবে সেটিই হল টেকসই শিক্ষা। টেকসই উন্নয়ন ও একবিংশ শতাব্দীর বিভিন্ন চ্যালেঞ্জ মোকাবেলার জন্য বিজ্ঞান শিক্ষাকে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিতে হবে। শনিবার বাংলাদেশ স্টেম সোসাইটি বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় শাখার আয়োজনে এক ওয়েবিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রফেসর ড. মো. ছাদেকুল আরেফিন এসব কথা বলেন।
বাংলাদেশ স্টেম সোসাইটি বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় শাখার আয়োজনে ওয়েবিনার অনুষ্ঠিত হয়েছে। ওয়েবিনারে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. মোঃ ছাদেকুল আরেফীন, বিশেষ অতিথি উপস্থিত ছিলেন প্রফেসর ড. আল-নকীব চৌধুরী, সাবেক উপাচার্য, পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়।

ওয়েবিনারে আমেরিকা, দক্ষিণ কোরিয়া, মালয়েশিয়া ও বাংলাদেশের ৪ জন স্বনামধন্য প্রফেসর ও গবেষক আমন্ত্রিত অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন এবং বিজ্ঞান, প্রযুক্তি, গবেষণা ও উদ্ভাবন নিয়ে তাঁদের গবেষণাকর্ম উপস্থাপন করেন। দক্ষিণ কোরিয়া থেকে ‘সিজং বিশ্ববিদ্যালয়ের’ প্রফেসর এস এম রিয়াজুল ইসলাম প্রযুক্তি ব্যবহার করে অনলাইন শিক্ষাকে কিভাবে কার্যকরী করা যায় সে বিষয়ে আলোচনা করেন।

আমেরিকার ‘লুইজিয়ানা স্টেট ইউনিভার্সিটির’ ড. নূরে আলম সিদ্দিকী কোভিড-১৯ গবেষণা নিয়ে আলোচনা করেন। ইউনিভার্সিটি অফ কেবাসাং মালয়েশিয়া থেকে প্রফেসর ড. আখতারুজ্জামান সোলার সেল গবেষণার বর্তমান ও ভবিষ্যৎ চ্যালেঞ্জগুলো নিয়ে কথা বলেন। বাংলাদেশ পারমাণবিক শক্তি কমিশনের পরিচালক ড. শাকিলুর রহমান রেডিওথেরাপি ও ক্যান্সার চিকিৎসা এবং বাংলাদেশের বাস্তবতা নিয়ে আলোচনা করেন।

বিশেষ অতিথি প্রফেসর ড. আল-নকীব চৌধুরী বলেন, এসডিজির লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি নির্ভর দক্ষ মানবশক্তি তৈরির বিকল্প নেই। সভাপতির বক্তব্যে ড. মোঃ খোরশেদ আলম বলেন, প্রয়োজনই মানুষকে নতুন কিছু উদ্ভাবনের তাগিদ দেয়। বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির ব্যবহারের মাধ্যমেই অতীতের মতো বর্তমানের করোনা মহামারী থেকে মানবজাতি রক্ষা করবে নিজেদেরকে। ওয়েবিনারে দেশ বিদেশ থেকে শতাধিক গবেষক, শিক্ষার্থী অংশগ্রহণ করে। ওয়েবিনার সঞ্চালনা করেন বাংলাদেশ স্টেম সোসাইটি বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সদস্য সচিব ড. নাজমুল কায়েস।

Sharing is caring!