একটু সহযোগিতই পারে কলেজ শিক্ষার্থী’র জীবন বাঁচাতে

প্রকাশিত: ১১:১৩ অপরাহ্ণ, আগস্ট ৫, ২০২০

মাসুদ পারভেজ , রৌমারী (কুড়িগ্রাম) প্রতিনিধি ::

ঢাকা কমার্স কলেজের বানিজ্য বিভাগের অনার্স শেষ বর্ষের শিক্ষার্থী আব্দুল মান্নান মানিক (২২)’র জীবন বাঁচাতে সাহায্যের আবেদন জানিয়েছেন তার বাবা মো. ফজলুল হক। গত ২২ জুলাই বুধবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে কুড়িগ্রামে জেলার রৌমারী উপজেলার রৌমারী সদর ইউনিয়নের চরবামনেরচর গুচ্ছ গ্রাম নামক স্থানে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় মারাত্মক ভাবে আহত হন।

পরে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে রৌমারী হাসপাতালে ভর্তি করালে কর্তব্যরত চিকিৎসক আশঙ্কাজনক হওয়ায় উন্নত চিকিৎসার জন্য বাহিরে নেওয়ার জন্য পরামর্শ দেন। তাৎক্ষণিক ভাবে তাকে রংপুর কমিউনিটি কলেজ হাসপাতাল (ডক্টরস ক্লিনিকে) আইসিইউতে ২ নং ব্যাড এ ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসা চলাবস্থায় ২৭ জুলাই পর্যন্ত তার জ্ঞান না ফেরায় তাকে লাইফ সার্পোটে রাখা হয়েছে। এতে প্রতিদিন রোগীর পিছনে খরচ হচ্ছে প্রায় ২৫ থেকে ৩০ হাজার টাকা।

এদিকে চিকিৎসার খরচ জোগাতে আহত আব্দুল মান্নানের বাবা তার সহায়-সম্বল সব হারিয়ে নিঃস্ব প্রায়।

রংপুর কমিউনিটি ক্লিনিকের দায়িত্বরত চিকিৎক নিউরো সার্জারী ডা. মো: তোফায়েল আহমেদ বলছেন তার মাথায়, গলার হাড় ও বুকের হাড়সহ কয়েকটি স্থানে অধিক আঘাত পায়। সে কারনে হয়তো জ্ঞান ফেরছে না। তাই তার উন্নত চিকিৎসা করাতে প্রায় ২৫ থেকে ৩০ লাখ টাকার মতো খরচ হতে পারে। দরিদ্র বাবা এত টাকা কোথায় পাবে তা নিয়ে পড়েছেন চরম হতাশায়।

এত টাকা জোগাড় করা তার পরিবারের পক্ষে মোটেই সম্ভব হচ্ছে না। তাই অসুস্থ আব্দুল মান্নানের সকল বন্ধু-বান্ধব, আত্মীয়-স্বজন, সমাজের বিত্তবান ও এনজিওসহ প্রধান মন্ত্রী’র কাছে সাহায্য চেয়েছেন।

সাহায্য পাঠানোর ঠিকানা তার বাবা ফজলুল হক,ন্যাশনাল ব্যাংক রৌমারী শাখা হিসাব নং-১১৭৮০০২০৮৯১২৫,বিকাশ নং-০১৯৫১০১৫০৮৬, ও তার মা মোকলেজা, সোনালী ব্যাংক রৌমারী শাখা হিসাব নং-৩৪০৮২৩৩৪।