উজিরপুরে ৮ম শ্রেণির ছাত্রীকে ধর্ষণ চেষ্টা : মামলা

প্রকাশিত: ৯:১১ অপরাহ্ণ, আগস্ট ১৩, ২০২০

মহসিন মিঞা লিটন, উজিরপুর প্রতিনিধি ॥

বরিশালের উজিরপুরে ২ লম্পট কর্তৃক প্রাইভেট পড়া শেষে বাড়ীতে ফেরার পথে ৮ম শ্রেণির মেধাবী ছাত্রীকে জোরপূর্বক ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে। এনিয়ে এলাকায় চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। এ ঘটনায় ছাত্রীর পিতা রমেশ বাড়ৈ বাদী হয়ে বুধবার বরিশাল আদালতে ধর্ষণের চেষ্টার অভিযোগে ২জনকে আসামী করে মামলা দায়ের করেন। আসামীরা পলাতক রয়েছেন।

মামলা সূত্রে জানা যায় উপজেলার জল্লা গ্রামের হতদরিদ্র রমেশ বাড়ৈর মেয়ে ৮ম শ্রেণিতে পড়ুয়া ছাত্রীকে প্রথমে ৯ আগস্ট রবিবার বিকেল ৫টায় বাড়ীতে একা পেয়ে পাশর্^বর্তী বাড়ীর মৃত নলিনী মহুরীর ছেলে লম্পট শুকলাল মহুরী ও মৃত কমল মহুরীর ছেলে লম্পট শ্রীপতি মহুরী পানি পানের অজুহাত দিয়ে ঘরের ভিতর প্রবেশ করে ওই ছাত্রীকে দুইজনে মিলে জোর পূর্বক ধর্ষণের চেষ্টা করেন। ছাত্রী ডাক চিৎকার শুরু করলে লম্পটরা দ্রুত পালিয়ে যায়। ঘটনার সময় ছাত্রীর বাবা-মা ধামুরা বাজারে ডাক্তারের কাছে গিয়েছিলেন।

এরপর একইদিনে রাত ৭টার দিকে ওই ছাত্রী তার বান্ধবীকে নিয়ে পাশের বাড়ির সুনিল মল্লিকের ছেলে অশ্রু মল্লিকের কাছে প্রাইভেট পড়তে যায়। পড়া শেষ করে ৮টার দিকে বাড়িতে ফেরার পথে ওৎ পেতে থাকা ওই দুই লম্পট ছাত্রীর মুখ চেপে ধরে তুলে নিয়ে একটি নির্জন বাগানে নিয়ে উলঙ্গ করে মোবাইল ফোনে ভিডিও ধারণ করে তা ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেয়ার হুমকি দিয়ে জোর পূর্বক ধর্ষণের চেষ্টা করে। এসময় ছাত্রীর ডাকচিৎকারের শব্দ শুনে চাচা ব্রজেন বাড়ৈ ঘটনাস্থল ছুটে আসলে লম্পটরা পালিয়ে যায়। পরে ছাত্রীকে উদ্ধার করে তার চাচা বাড়ীতে নিয়ে যান।

এঘটনা ধামাচাপা দিতে এলাকার কতিপয় প্রভাবশালী মরিয়া হয়ে ওঠে। বিষয়টি এলাকায় ছড়িয়ে পড়ায় লম্পটের পরিবার ঘটনা ধামাচাপা দিতে ব্যর্থ হয়। এব্যাপারে ছাত্রীর পিতা অসহায় রমেশ বাড়ৈ ১২ আগস্ট বরিশাল আদালতে অভিযুক্ত শুকলাল ও শ্রীপতি মোহরীর বিরুদ্ধে ধর্ষণের চেষ্টার অভিযোগে মামলা দায়ের করেছেন।

এব্যাপারে উজিরপুর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ জিয়াউল আহসান জানান, আদালত থেকে থানায় মামলার নথি আসলে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Sharing is caring!